ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ঢাকা মহানগরীর উন্নয়নে যেখানেই কাজ করা হোক না কেন, সেখানেই অ’বৈধ স্থাপনা বা দ’খল পাওয়া যায়। যে সব খাল দ’খল উ’চ্ছেদ করেছি, সেগেুলো ড্রো’নের মাধ্যমে মনিটরিং করা হবে বলেও জানান তিনি।

আজ শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) দুপুর ১২টায় মিরপুর-১১ নম্বরের উ’চ্ছেদ অ’ভিযান পরিদর্শনের সময় এসব কথা বলে তিনি।অ’ভিযান পরিদর্শন শেষে মেয়র আতিক সাংবাদিকদের বলেন, ঢাকা শহরে যাই ধরি, সেটাই অ’বৈধ। যে সড়কে যাই, সেখানেই অ’বৈধ দ’খল। যে খালে যাই, দুই পাড়ে অ’বৈধ দ’খল।

অ’বৈধ দ’খলের ভিড়ে আমরা যারা বৈধ আছি, তারা সংকুচিত হয়ে যাচ্ছি। সময় এসেছে, অ’বৈধ দ’খলের বি’রুদ্ধে শ’ক্তিশালী হতে হবে। অ’বৈধ দ’খল উ’চ্ছেদের পর পুনরায় দ’খল হয়ে যায়। এ বি’ষয়ে সিটি কর্পোরেশনের প্রস্তুতি জানতে চাইলে ড্রো’ন ব্যবহারের কথা জানান আতিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, কোথাও উ’চ্ছেদ অ’ভিযানের পর আবার দ’খল হচ্ছে কী না সে বি’ষয়টি মনিটরিংয়ে ড্রো’ন ক্যামেরা ব্যবহার করা হবে। এ বি’ষয়ে আমি এরই মধ্যে নির্দেশনা দিয়েছি। বিশেষ করে খালের দুই পাড় মনিটরিংয়ে ব্যবহৃত হবে ড্রো’ন ক্যামেরা। কারণ সব জায়গায় কিন্তু সব সময় যাওয়া যায় না।

ই ড্রো’ন দিয়ে দেখা হবে যে আবার দ’খল হয়েছে কী না। তার জন্য একটি কেন্দ্রীয় নি’য়ন্ত্রণ করা হবে। সেখান থেকে সবকিছু মনিটরিং করা হবে।আমরা ডিজিটাল হতে চাই।

মিরপুর-১১ নম্বরের ৩ নম্বর এভিনিউয়ের ৪ নম্বর সড়ক থেকে অ’বৈধ দ’খল উ’চ্ছেদ করে সুন্দর করে রাস্তা নির্মাণে এরই মধ্যে ৩০ কোটি টাকার বাজেট অনুমোদন দিয়েছেন বলেও জানান ডিএনসিসি মেয়র। তিনি বলেন, এ সড়কটি যোগাযোগের দিক থেকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

সড়কটি সর্বনিম্ন ৬০ ফুট থেকে সর্বোচ্চ ৭৫ ফুট পর্যন্ত চওড়া হবে। এটি সুন্দর করে নির্মাণ করার জন্য এরই মধ্যে আমি ৩০ কোটি টাকার বাজেট অনুমোদন দিয়েছি। এ টাকা দিয়েই সড়কটি সুন্দর করে নির্মাণ করা হবে। গতকাল এবং আজ উ’চ্ছেদ অ’ভিযান চলছে। গতকাল ৮৫ শতাংশ উ’চ্ছেদ সম্পন্ন হয়েছিল।

আজ বাকিটা হবে। এরপরেও প্রয়োজন হলে কাল আবার উ’চ্ছেদ অ’ভিযান চলবে।উ’চ্ছেদ অ’ভিযানে সহযোগিতা করার জন্য স্থানীয় জনগণ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং পু’লিশসহ সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি ধ’ন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ডিএনসিসি মেয়র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here