হেফাজতে ইস’লামের সাম্প্রতিক বিভিন্ন কর্মসূচির বি’ষয়ে সংবাদমাধ্যমের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে যুগ্ম মহাস’চিব মা’ওলানা মামুনুল হক দাবি করেছেন, মিডিয়ার শ’ক্তি যদি পত্রপত্রিকা আর টেলিভিশনের পর্দা হয়, তবে তাদের কাছে আছে সোশ্যাল নেওয়ার্ক।

শুক্রবার (০২ এপ্রিল) বাদ জুমা জাতীয় ম’সজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে এক বি’ক্ষো’ভ সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি। এছাড়াও বৃহস্পতিবার (০১ এপ্রিল) রাজধানীর দুটি মাদ্রাসায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অ’ভিযানে পাঁচ শতাধিক ‘কোরবানির ছু’রি’ জ’ব্দের তীব্র সমালোচনা করেন তিনি।

মামুনুল হক বলেন, অ’স্ত্র উ’দ্ধারের নামে স’রকার নাট’ক করছে। জনগণের সামনে হেয় প্রতিপন্ন করতে হেফাজতে ইস’লামের নামে মিথ্যা ত’থ্য দিয়ে নাট’ক মঞ্চস্থ করছে স’রকার। এ নাট’ক অনেক পুরনো, হেফাজতকে ক’লঙ্কিত করতেই স’রকার এ ধরনের অ’ভিযান পরিচালনা করছে।

ক্ষু’ব্ধ মামুনুল হুঁ’শিয়ারি দিয়ে বলেন, এভাবে তাদের হেয় করে অ’ভিযান চা’লিয়ে ছু’রি জ’ব্দ করা হলে আগামীতে বিনামূ’ল্যে রাষ্ট্রের জন্য ঈদুল আজহায় পশু কোরবানি থেকে বিরত থাকবে কাওমী মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা। তিনি আরও বলেন, আম’রা কোরবানির ছু’রি সংরক্ষণ হয়তো আর নাও করতে পারি।

ই ছু’রিগুলো দেশের কল্যাণে নিয়োজিত, এই ছু’রিগুলো এদেশের ধ’র্মপ্রা’ণ মু’সলমানদের কোরবানির দায়িত্বে নিয়োজিত। বারবার এই ছু’রি নিয়ে আপনারা (স’রকার) নাট’ক করেন। কারা এই কাজ করল, জানতে চাই, মুখোশ উন্মোচন করতে হবে।

এরপরেই সংবাদমাধ্যম প্রস’ঙ্গে তিনি বলেন, মিডিয়া অনেক শ’ক্তিশালী আম’রা জানি, মিডিয়া শুধু বাংলাদেশ নয়, পুরো পৃথিবী নি’য়ন্ত্রণ করে তাও জানি।এ সময় সংবাদমাধ্যম নিয়ে মামুনুল বক্তব্য শুরু করলে হেফাজতকর্মীরা চ’রম ক্ষু’ব্ধ হয়ে ওঠেন।\

ক্ষো’ভ প্রকাশের সময় মামুনুল হাতের ইশারায় তাদের শান্ত করতে সচেষ্ট হন। এরপর পরিস্থিতি কিছুটা নি’য়ন্ত্রণে এলে আবারও বক্তব্য শুরু করেন মামুনুল। মিডিয়াকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনারা যতই প্রভাবশালী হন, যতই শ’ক্তিশালী হন, পরিবেশ পরিস্থিতিকে যতই নি’য়ন্ত্রণ করেন, মনে রাখবেন,

আল্লাহর চেয়ে বেশি শ’ক্তি আপনাদের নেই। ইস’লামের বিপক্ষে গণমাধ্যম অবস্থান করছে দাবি করে তিনি বলেন, আপনারা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স’রকার দলীয় এমপির বি’রুদ্ধে কোনো রিপোর্ট করতে পারেন না, শতবর্ষী বাংলাদেশের অহংকার জামিয়া ইউনুসিয়ায় যারা হা’মলা করল তাদের ব্যাপারে রিপোর্ট করতে পারেন না, যারা আমা’র মায়ের বুক খালি করল, যারা আমা’র ভাইদের হ’ত্যা করল, তাদের মুখোশ উন্মোচন করতে পারেন না।

আপনারা পারেন, হেফাজতে ইস’লামের ক’ল্পিত তা’ণ্ডবের কাহিনী রচনা করতে। তিনি অ’ভিযোগ করেন, ২০১৩ সাল থেকে গণমাধ্যম চেষ্টা করছে হেফাজতে ইস’লামকে মাইনাস করবার। হেফাজতে ইস’লাম স’ম্পর্কে জাতির কাছে নেতিবাচক ত’থ্য উপস্থাপন করছে এই মাধ্যম। তিনি আরও বলেন, এ অ’পচেষ্টা করে কি হয়েছে, আপনারা যতই চেষ্টা করছেন, আপনাদের সব অ’পচেষ্টার জবাব দিচ্ছেন আমা’র আল্লাহ।

এসময় তিনি হুঙ্কার দিয়ে গণমাধ্যমের উদ্দেশে বলেন, আপনাদের কাছে টেলিভিশনের পর্দা আছে, আমাদের কাছে সাড়ে তিন লাখ ম’সজিদের মেম্বার আছে। আপনাদের কাছে যদি জাতীয় পত্র-পত্রিকা থেকে থাকে আমাদের কাছে সোশ্যাল মিডিয়া আছে। জনগণকে আগের দিনের মতো বোকা ভাববেন না। এ সময় বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রচার করার আহ্বান জানান এই হেফাজত নেতা।

গত ২৬ মা’র্চ হেফাজতের বি’ক্ষো’ভ কর্মসূচি থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে আ’গুনের ঘ’টনার বি’ষয়ে তার দাবি, ‘হয়তো কেউ ভু’ল করে, আবেগের বশবর্তী হয়ে গ্রামের কেউ, পল্লী গাঁয়ের কেউ, না জেনে, না বুঝে, প্রেসক্লাবে অথবা দুই একজন সাংবাদিকের ও’পর ভু’ল আচরণ করে থাকতে পারে। কেন্দ্রীয়ভাবে আম’রা সেজন্য দুঃখ প্রকাশ করেছি। কিন্তু গণমাধ্যমের কর্মীরা আমাদের সে কথা না শুনে আপনারা হেফাজতে ইস’লামকে বয়কট করার সি’দ্ধান্ত নিলেন।

মামুনুল হক হুঁ’শিয়ারি দিয়ে বলেন, যদি ইস’লামকে বয়কট করার সি’দ্ধান্ত গ্রহণ করেন, যদি হেফাজতে ইস’লামকে বয়কট করেন এই জনগণ মিডিয়াকে বয়কট করবে। তিনি সংবাদমাধ্যমের প্রতি আহ্বান রেখে বলেনে, ‘আম’রা চাই, মিডিয়া অ’তীতেও দেশ-জাতি গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে, স’রকারের সমালোচনা করেছে। স’রকারের সমালোচনার মাধ্যমে সঠিক পথ দেখাবে গণমাধ্যম। স’রকার যেন জনগণকে গু’লি করে হ’ত্যা করতে না পারে, তার বি’রুদ্ধে আপনাদের গণমাধ্যমকে সোচ্চার হতে হবে। এভাবে যদি আপনারা থাকেন, তবে জনগণ মিডিয়ার পাশে থাকবে। বি’ক্ষো’ভ সমাবেশ শেষে কোনো মিছিল না করার সি’দ্ধান্ত জানিয়ে কর্মসূচি শেষ করে হেফাজতে ইস’লাম বাংলাদেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here