প্র’কাশ্যে এল এক অদ্ভুত ঘ’টনা। এক পুরুষের দুই স্ত্রী হাজির। তারা নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নিচ্ছেন স্বামীকে। তারাই ঠিক করে দিলেন, কার স’ঙ্গে কতদিন থাকবে স্বামী।

ঝাড়খণ্ডের রাঁচীতে এই ঘ’টনা ঘ’টেছে। দুই মহিলা চাইছেন তিনদিন করে প্রত্যেকের কাছে থাকুক স্বামী।

এমনকি স্বামীকে একটা ‘ডে অফ’ও দিচ্ছে স্ত্রী’রা। স্বা’ভাবিকভাবেই এই মা’মলায় অ’বাক হয়েছেন সবাই।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সুত্রে জা’না যায়, ব্য’ক্তির নাম রাজেশ। তাঁর দুই স্ত্রী। কিন্তু, সময় কাটানো নিয়ে দুই স্ত্রী’র মধ্যে ঝামেলা তৈরি হওয়াতেই স’মস্যা হয়।

পু’লিশের কাছে হাজির হয় দু’জনে। প্রায় প্রত্যেক দিনই থা’নায় গিয়ে হাজির হচ্ছিল তারা। আর তাতে বেজায় বি’পাকে প’ড়ে পু’লিশ।

কিছুদিন দ্বিতীয় স্ত্রী ফের হাজির হন থা’নায়। গিয়ে বলেন, ‘পাঁচ দিন হয়ে গিয়েছে, স্বামী আসেনি। কিছু একটা করুন।’

এরপরই পু’লিশ দুই স্ত্রী’কে নিয়ে থা’নায় আসতে বলে রাজেশকে। পু’লিশের উপ’স্থিতিতেই সমঝোতায় আসে তারা।

পু’লিশের সামনেই ঠিক হয়, সপ্তাহের প্রথম তিন দিন প্রথম স্ত্রী’র কাছে থাকবে রাজেশ, পরের তিনদিন থাকবে দ্বিতীয় স্ত্রী’র কাছে। আর এক দিন ‘অফ ডে।’

গত বছরের শেষে একটি ঘ’টনায় দুই স্ত্রী’র কাছে মা’র খেয়েছিলেন এক যুবক। মাত্র ২৬ বছরেই দুটো বিয়ে সেরে ফে’লে ন এক যুবক। থেমে থাকেননি, আরও একটা বিয়ের জন্য প্র’স্তুত হচ্ছিলেন তিনি। এরপরই প্রথম দুই স্ত্রীয়ের কাছে বেধড়ক মা’র খেলেন তিনি। আর এই পিটুনি যেখানে সেখানে নয়, একেবারে থা’নার সামনেই হল।

তামি’লনাড়ুর কোয়েম্বাটোরে এই ঘ’টনা ঘ’টেছিল। ২০১৬ য় প্রথম বিয়েটি করেন, দিব্যি চলছিল সংসার। তারপর আবার এ বছরে এপ্রিল মাসেও আরেকটি বিয়ে করে ফে’লে ন। এরপর ফের ম্যাটরিমনিয়াল সাইটে দিয়ে দিয়েছিলেন নিজে’র ছবি। কারণ আরও এক মহিলাকে বিয়ে ক’রতে চান তিনি।পু’লিশের সামনেই ঠিক হয়, সপ্তাহের প্রথম তিন দিন প্রথম স্ত্রী’র কাছে থাকবে রাজেশ, পরের তিনদিন থাকবে দ্বিতীয় স্ত্রী’র কাছে।

ঘ’টনার কথা জা’নার পর থেকেই , তাঁর প্রথম দুই স্ত্রী বারবার তাঁর অফিসের সামনে অনশনে য় বসছিলেন। শেষ পর্যন্ত পু’লিশ গিয়ে সেই অনশন তোলে, দুই স্ত্রী এবং অ’ভিযুক্ত যুবককে থা’নায় ডাকেন। থা’নার সামনে পৌঁছে, দুই স্ত্রী এবং তাঁদের পরিজনরা ওই যুবকের উপর গুছিয়ে হাতের সুখ করে নেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here