২০০৫ সালে বলিউডে প্রদীপ সরকারের ছবি ‘পরিণীতা’ দিয়ে যাত্রা শুরু করেন বিদ্যা বালান।

অবশ্য তার আগেই দক্ষিণী ছবিতে মুখ দেখিয়ে ফেলেন এ গুণী অভিনেত্রী। এ ছা’ড়াও বাংলা ছবি ‘ভালো থেকো’য় অভিনয় করে চলচ্চিত্র সমা’লোচকদের প্রশং’সা কু’ড়িয়ে ছিলেন বিদ্যা।

তবে বলিউডে পা রাখার পর থেকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। এর আগে, যদিও বিদ্যা পেরিয়ে এসেছিলেন কিছু অ’ন্ধকার অ’ধ্যায়।

হোটেল রুমে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন পরিচালক! বিদ্যা বালান নিজের ফেলে আসে দিনের স্মৃতি রোমন্থনে সেই তি’ক্ত অভি’জ্ঞতা শে’য়ার করেছেন।

এক সাক্ষা’ৎকারে তিনি বলেন, ‘একটা সময় আমার মনে আছে, আমি তখন ছিলাম চেন্নাইয়ে।

পরিচালক এসেছিলেন আমার কাছে। আমি বলেছিলাম, চলুন কফি শপে গিয়ে বসি। উনি ক্র’মাগত জো’র করতে লা’গলেন, হোটেলের ঘরে গিয়ে কথা বলার জন্য। আমি আমার বাড়ির দরজাটা খুলে দিয়েছিলাম। পাঁচ মিনিটে উনি বেরিয়ে গিয়েছিলেন।’

বিদ্যা বালান আরও জানান, দক্ষিণের আরও একজন পরিচালক তাকে দেখিয়ে বিদ্যার রূপের সমা’লোচনা করেন। বলেন, এমন দেখতে কেউ কীভাবে ফিল্মের নায়িকা হতে পারেন? এরপর বহুদিন পর্যন্ত বিদ্যা আয়নার সামনে আসতেন না অবসাদে। পুরোনো দিনের সেই সব কথা রোমন্থন করেন বিদ্যা বালান।

সাক্ষাৎকারে বিদ্যা জা’নান, কেরিয়ারের শুরুর দিকে তিনি দক্ষিণী ছবি দিয়ে শুরু করেন। যদিও বহু ফিল্ম থেকে তাকে সরিয়ে দেয়া হয়। পাশাপাশি তিনি জা’নান, একটি দক্ষিণী ছবিতে অভিনয়ের সময় চিত্রনাট্যে যে ধরনের মশকরার সংলাপ ব্যবহার হয়েছিল, তাতে অস্ব’স্তি হ’চ্ছিল বিদ্যার। এরপরই তিনি ফিল্মটি ছে’ড়ে দেন। পরে ছবির নি’র্মাতারা তাকে আইনি নো’টিশও দেন।

পরিচালক এসেছিলেন আমার কাছে। আমি বলেছিলাম, চলুন কফি শপে গিয়ে বসি। উনি ক্র’মাগত জো’র করতে লা’গলেন, হোটেলের ঘরে গিয়ে কথা বলার জন্য। আমি আমার বাড়ির দরজাটা খুলে দিয়েছিলাম। পাঁচ মিনিটে উনি বেরিয়ে গিয়েছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here