বর্ত’মান সরকারকে ‘স্বৈরাচার’ আখ্যা দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে’র কেন্দ্রী’য় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর বলেছেন, এই সরকারের পতন ছাড়া দেশের মানুষের মুক্তি নেই।

বৃহ’স্পতিবার গণ’সংহতি আন্দোলনের উদ্যোগে সকল মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করা, স্বাস্থ্য’খাতে দুর্নী’তির রাঘব বোয়ালদের গ্রেফ’তার এবং স্বা’স্থ্যমন্ত্রী ও অধিদফতরের ডিজির অপসারণের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি থেকে তিনি এ কথা বলেন।

গণসংহতি আন্দো’লনের প্রধান সমন্বয়’কারী জোনায়েদ সাকীর সভাপতিত্বে ক’র্মসূচিতে আরও বক্তব্য রাখেন বাম গণতা’ন্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ, বিপ্ল’বী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক,

গণফোরামের অন্যতম কে’ন্দ্রীয় নেতা জগলুল হায়দার আফ্রিক, রাষ্ট্র’চিন্তার ফরিদুল হক, গণসংহতি আন্দোলনের নির্বাহী সমন্বয়কারী (ভারপ্রাপ্ত) আবুল হাসান রুবেল, রাজ’নৈতিক পরিষদের সদস্য ফিরোজ আহমেদ প্রমুখ

ফাহিমে হ’ত্যা : নাইজেরিয়ার শ’ত্রুদের স’ন্দে’হ, কালো পোশাক পরে এসেছিলেন খু’নিপেশাদার খু’নির হাতেই খু’ন হন রাইড শেয়ারিং অ্যাপ পাঠাও-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ।

ত’দন্ত করে গো’য়েন্দারা এখন পর্যন্ত এমনই ত’থ্য পেয়েছেন। তাদের ধারণা, খু’নির পরনে ছিল কালো পোশাক, মুখে ছিল কালো মাস্কও। ফাহিম সালেহর পিছু নিয়েই তিনি লিফটে চড়ে ম্যানহাটানের বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্টে প্রবেশ করেন। তবে দুদিন পেরিয়ে গেলেও এখনও কাউকে গ্রে’ফতার করতে পারেনি নিউইয়র্ক পু’লিশ।

নিউ ইয়র্ক পু’লিশের ত’দন্তকারীরা ফাহিমের অ্যাপা’র্টমেন্টে তল্লা’শি চা’লিয়ে আলামত সংগ্রহ করে নানান ত’থ্য দিচ্ছেন। আশপাশের রা’স্তা ও ভবনে যতো সিসি ক্যা’মেরা আছে, সেগুলোর ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে বলেও এনওয়াইপিডির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।ফাহিমের অভিভাবকেরা বলছেন, ঘা’তক কীভাবে ভবন থেকে পালালো তা জানতে হবে।

আর ত’দন্ত কর্মক’র্তাদের বক্তব্য, ফাহিমকে হ’ত্যার পর টুকরো টুকরো ম’রদে’হ সুটকেসে ভরে কোথাও সরিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা ছিল খু’নির, যাতে তাকে নিখোঁজ উল্লেখ করা যায়। তবে খু’নির কাজ শেষ হওয়ার আগেই ওই অ্যাপার্ট’মেন্টে যাওয়ার জন্য কেউ নিচ থেকে কলিং বেল দিয়েছিলেন; সে শব্দেই ঘা’তক সবকিছু ফে’লে ভবনের পেছনের দরজা ও সিঁড়ি ব্যবহার করে পা’লিয়ে যান।

আপাতত ব্যবসায়িক কারণেই হ’ত্যা বলে মনে করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে নাইজেরিয়ার শ’ত্রুদের স’ন্দে’হ করা হচ্ছে। মৃ’ত্যুর আগে ফাহিমের বি’রুদ্ধে নিউ জার্সির এক কারাকর্মীর করা মা’মলা চলমান ছিল।

ফাহিমের বি’রুদ্ধে ২০১৭ সালে করা মা’মলায় ক্রিক ইডি নামে ওই ব্যক্তি প্র’তারণার অভিযোগ আনেন। ওই ব্যক্তির ভাষ্য, ফাহিমের তৈরি প্র্যাঙ্কডায়াল অ্যাপ ব্যবহারের সময় তিনি ভেবেছিলেন, তিনি যা করছেন, তা বৈধ। যদিও অ্যাপটি ব্যবহার করে ওই ব্যক্তি গো’পনে অন্যদের কথা রেকর্ড করেছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here