ভা’রতের ঝাড়’গ্রামের গোপী’বল্লভপুরে জ’ঙ্গলে প’রকীয়ারত অবস্থায় ব’জ্র’পাতে মৃ’ত্যু হল যুবক-যুবতীর।

দুজনেই স্থা’নীয় ইট’ভাঁটায় কাজ করতেন বলে জানা গেছে।

দুজনের সম্প’র্কের বিষয়ে গ্রামের মানুষ আগে থেকেই অবহিত ছিলেন তারা প্রায়ই জঙ্গলে যেতেন বলেও জানান গ্রাম বাসি’ন্দারা।

যুবকের নাম জিতেন সিং (৩৩) এবং যুবতীর নাম কুনকি দোলুই (২৫) এর মধ্যে স’ম্পর্ক দী’র্ঘদিনের।

এদিন বৃষ্টি’পাতের পর জঙ্গলে তাদের মৃ’তদেহ যখন উ’দ্ধার করা হয় তখন দেখা যায় দুজন একে অপরের সাথে অলিঙ্গন’বনদ্ধ।

দুজনেরই শরীরের অনেক অংশে পো’ড়া দাগ দেখে পুলিশ সন্দেহ করে ব’জ্রপাতেই মৃ’ত্যু হয়েছে দুজনের। দে’হ দুটি ময়নাতদ’ন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

আরো সংবাদ

একজন ভা’রতীয় হিসেবে গর্বিত নই: অমর্ত্য সেন

কা’শ্মীর ইস্যু’তে এবার মুখ খুললেন নোবেল বিজয়ী অর্থনীতি’বিদ অমর্ত্য সেন। সোমবার কাশ্মীর নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করে তিনি বলেন, এটি যে শুধুমাত্র সমস্ত মানুষের অধিকার বজায় রাখার বিরোধিতা করেছে তা নয়, এই পদক্ষেপে সংখ্যাগরিষ্ঠের কথাও ভাবা হয়নি। সেইসঙ্গে একজন ভারতীয় হিসেবে গর্বিত নন বলেও মন্তব্য করেছেন বিশ্বখ্যাত এই অর্থনীতিবিদ। খবর এনডিটিভির।

এনডিটিভিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি না যে গণতন্ত্র ছাড়া কোনভাবে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করা সম্ভব।’৮৫ বছর বয়সী এই অর্থনীতিবিদ আরও বলেন, ‘গোটা বিশ্বে গণতান্ত্রিক আদর্শ অর্জনের জন্য এত কিছু করেছে ভারত। তবে এখন আর আমি একজন ভারতীয় হিসাবে এই সত্য নিয়ে গর্বিত নই যে ভারতই গণতন্ত্রের পক্ষে প্রথম প্রাচ্যের দেশ ছিল। কেননা যে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তাতে আমরা সেই খ্যাতি হারিয়ে ফেলেছি।’

অন্যান্য রাজ্যের লোকেরা জম্মু ও কাশ্মীরে জমি কিনতে পারবে এই কথা মনে করে অমর্ত্য সেন বলেন যে, রাজ্যের জনগণের (জম্মু ও কাশ্মীর) কথা ভেবেও কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।

‘এটি এমন একটি বিষয় যেখানে কাশ্মীরিদের বৈধ দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে কারণ যে এটি তাঁদের জমি,’ বলেন তিনি ।এছাড়া জম্মু ও কাশ্মীরের মূলধারার রাজনৈতিক নেতাদের গ্রেফতার করার বিষয়েও সরকারের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন অমর্ত্য সেন।

সরকার ‘প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা’ হিসাবে জম্মু ও কাশ্মীরকে বিশাল নিরাপত্তার আওতায় রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যেগুলিতে জনসাধারণের ক্ষতি হতে পারে এমন প্রতিক্রিয়া রোধ করতেই এই পদক্ষপ বলে বর্ণনা করেছে সরকার।

এই সিদ্ধান্তেরও তীব্র সমালোচনা করে অমর্ত্য সেন বলেন ‘এটি সর্বোত্তম ঔপনিবেশিক অজুহাত। ব্রিটিশরা এভাবেই ২০০ বছর ধরে দেশ চালিয়েছিল।তিনি আরও বলেছেন, আমরা যখন স্বাধীনতা পেলাম তখন আমরা প্রত্যাশা করেছিলাম… আমরা আমাদের ঐতিহ্য মেনে কাজ করব।

অন্যান্য রাজ্যের লোকেরা জম্মু ও কাশ্মীরে জমি কিনতে পারবে এই কথা মনে করে অমর্ত্য সেন বলেন যে, রাজ্যের জনগণের (জম্মু ও কাশ্মীর)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here