আমেরিকান সংস্থা তৈরি করল এমন এক ট্যাবলেট, যা খেলে…ম’হিলাদের গো’পন চা’হিদা / সে’ক্স বেড়ে যাবে। এটাই বিশ্বের প্রথম পিল,…যা ম’হিলাদের যৌ’ন চা’হিদা বাড়াবে। অন্যভাবে বলতে গেলে, পিলটি খেলে মে’য়েরাই আপনাকে গো’পন মি’লনের জন্য জো’র করবে।

এরমধ্যেই ও’ষুধটি এগারো হাজার ম’হিলার ও’পর পরীক্ষা করেও দেখা হয়েছে, বলে জানানো হয়েছে সংস্থার তরফে। সমীক্ষা চা’লানো হয়েছে এমন কয়েকজন ম’হিলার স’ঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাঁদের চা’হিদা যেমন বেড়েছে, তেমন কম আসক্তির জন্য যে মা’নসিক সমস্যার তৈরি হয়েছিল,

তাও অনেক কমে গেছে।অ্যালকোহল, অনিয়ন্ত্রিত জীবন, ব্যায়ামে অনীহা প্রভৃতি কারণে দিন দিন অনুর্বরতা বাড়ছে। এক্ষেত্রে বিশেষ সহায়ক মসলা রসুন। কেননা সুস্থ (বী’র্য) তৈরিতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার।যৌ’ন অক্ষ’মতার ক্ষেত্রে রসুন খুব ভালো ফল দিয়ে থাকে৷

রসুন কে ‘গরীবের পে’নিসিলিন’ বলা হয়৷ কারণ এটি অ্যান্টিসেপ্টিক এবং হিসাবে কাজ করে আর এটি অতিঅ সহজলভ্য সব্জী যা আমা’রা প্রায় প্রতিনিয়ত খাদ্য হিসাবে গ্রহন করে থকি৷ আপনার যৌ’ন ই’চ্ছা ফিরে আনার ক্ষেত্রে এর ব্যবহার খুবই কার্যকরী৷

সেবন বিধি প্রতিদিন নিয়ম করে কয়েক কোষ কাঁচা রসুন খেলে শ’রীরের যৌ’বন দীর্ঘ স্থায়ি হয় । যারা পড়ন্ত যৌ’বনে চলে গিয়েছেন, তারা প্রতিদিন দু’কোয়া রসুন খাঁটি গাওয়া ঘি-এ ভেজে মাখন মাখিয়ে খেতে পারেন। তবে খাওয়ার শেষে একটু গরম পানি বা দু’ধ খাওয়া উচিত। এতে ভালো ফল পাবেন।

যৌ’বন রক্ষার জন্য রসুন অন্যভাবেও খাওয়া যায়। কাঁচা আমলকির রস ২ বা ১ চামচ নিয়ে তার স’ঙ্গে এক বা দুই কোয়া রসুন বাটা খাওয়া যায়। এতে স্ত্রী-পু’রুষ উভ’য়ের যৌ’বন দীর্ঘস্থায়ি হয়। গ’বেষ’ণায় প্রমাণিত এতে করে ৩ গুণ পরিমাণ শ’ক্তি বেড়ে যায়।

সাবধানতা
যাদের শ’রীর থেকে র’ক্তপাত সহজে বন্ধ হয় না, অতিরিক্ত রসুন খাওয়া তাদের জন্য বি’পদ জনক। কারণ, রসুন র’ক্তের জমাট বাঁ’ধার ক্রিয়াকে বা’ধা প্রদান করে। ফলে র’ক্তপাত বন্ধ হতে অসুবিধা হতে পারে। তা ছাড়া অতিরিক্ত রসুন শ’রীরে এলার্জি ঘটাতে পারে।

এসব ক্ষেত্রে অতিরিক্ত রসুন না খাওয়াই উত্তম। রসুন খাওয়ার ফলে পাকস্থলীতে অস্বস্তি বোধ করলে রসুন খাওয়া বন্ধ রাখু’ন। শি’শুকে দুগ্ধদানকারী মায়েদের রসুন না খাওয়াই ভালো। কারণ রসুন খাওয়ার ফলে তা মায়ের দু’ধের মাধ্যমে শি’শুর পাকস্থলীতে ঢুকে শি’শুর য’ন্ত্রণার কারণ ঘটাতে পারে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here