শিক্ষার্থীদের ও’পর লা’ঠিচার্জ না করার অ’পরাধে প্রকাশ্যে বরগুনার বামনা থানার ওসি ইলিয়াস আলী তালুকদার একই থানার এএসআই পদমর্যাদার এক পু’লিশ সদস্যকে থা’প্পড় দিয়েছেন। ঘ’টনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

সম্প্রতি পু’লিশের গু’লিতে নি’হত সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের স’ঙ্গে থাকা ভিডিও চিত্রগ্রাহক সাহেদুল ইসলাম সিফাতের নিজ বাড়ি বরগুনার বামনা উপজে’লায় তার মুক্তি দাবিতে শনিবার (০৮ আগস্ট) দুপুরে শিক্ষার্থীদের মা’নববন্ধ’ন কর্মসূচিতে এ ঘ’টনা ঘটে।

ভিডিওতে দেখা যায়, ওসি ইলিয়াস আলী প্রথমে উ’ত্তেজিত হয়ে থানার এক সাব ইন্সপেক্টরকে চড়থা’প্পড় দেন। এ সময় চি’ৎকার করে তিনি বলেন, কী করেন আপনারা? পিটান সবাইকে। পরে ওসি নিজেই শিক্ষার্থীদের পে’টাতে শুরু করেন।

এর আগে পু’লিশ এসে প্রথমে মা’নববন্ধ’নের ব্যানার ও মাইক ছি’নিয়ে নেয়। এক পর্যায়ে সিফাতের বন্ধুরা মা’নববন্ধ’ন চা’লিয়ে গেলে বামনা থানার অফিসার ই’নচার্জ (ওসি) ইলিয়াস আলী তালুকদার ছুটে এসে মা’নববন্ধ’নরত শিক্ষার্থীদের লা’ঠিপে’টা শুরু করেন। এতে ৪ জন শিক্ষার্থী গু’রুতর আ’হত হয়।

এ ব্যাপারে বামনা থানার অফিসার ই’নচার্জ (ওসি) ইলিয়াস আলী তালুকদার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমাদের অনুমতি না নিয়ে কতিপয় দুষ্কৃতিকারী সড়কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে এবং রাষ্ট্রের বি’রুদ্ধে মা’নববন্ধ’ন করতেছে এমন সংবাদ পেয়ে আমি মা’নববন্ধ’নটি বন্ধ করে দেই।’

তবে সহকর্মীকে দেয়া থা’প্পড়ের বি’ষয়টি ওসি ইলিয়াস আলী অস্বীকার করেন।

এদিকে, কক্সবাজারের টেকনাফে পু’লিশের গু’লিতে নি’হত সে’নাবা’হিনীর অবসরপ্রা’প্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের ত’থ্যচিত্র নির্মাণের সহযোগী ছিলেন সিফাত ও শিপ্রা। ঘ’টনাস্থল থেকে তাদের গ্রে’ফতার করা হয়। পরে দুটি মা’মলায় তাদেরকে কা’রাগারে পাঠানো হয়।

রোববার (৯ আগস্ট) দুপুরে আ’দালতের এক আদেশে শিপ্রা দেবনাথ জা’মিন পেয়েছেন। অপরদিকে হ’ত্যা ও মা’দকের দুটি মা’মলায় সিফাতের জা’মিন আবেদনের শুনানি হয়। আ’দালত সোমবার আদেশ দেবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here