একেবারেই ক্ষুদ্র আরএনএবাহী ভাই’রাস ক’রোনা ভাই’রাস। গোটা বিশ্ব ক’রোনার করাল থাবার ভ’য়াবহ শি’কার। গোটা বিশ্বকে ভালোই ভুগিয়েছে ছোট্ট একটি জী’বাণু। এদিকে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন বিশ্বের নানা দেশ ও অঞ্চলে আধিপত্য বিস্তার করে এই ভাই’রাস এখন অনেকটা সহনীয় হয়ে এসেছে।

তাদের দাবি, এখন ৪০ শতাংশ মানুষ ক’রোনা আ’ক্রান্ত হলেও তাদের কোনো উপসর্গ প্রকাশ পাচ্ছে না। আর এতেই আশার কথা শোনাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এদিকে, ক’রোনার ভ্যাকসিন বাজারে আসা সময়ের ব্যাপার হলেও তা প্রথমধাপে কতটা কার্যকরী হবে তা নিয়ে যথেষ্ট স’ন্দে’হ রয়েছে। এর মাঝে বিশেষজ্ঞদের এই ত’থ্য আলোর সঞ্চার করছে।

বিজ্ঞানীরা গবে’ষণায় দেখেছেন বোস্টন আশ্রয়শিবিরে ১৪৭ জন ক’রোনা আ’ক্রান্তের মধ্যে ৮৮ শতাংশের শ’রীরে কোনো উপসর্গ পাওয়া যায়নি। অথচ তারা ক’রোনা আ’ক্রান্ত ছিলেন। নর্থ ক্যারোলিনা, আরকানসাস, ওহিও এবং ভার্জিনিয়ায় ৩ হাজার ২৭৭ জন আ’ক্রান্ত হলেও ৯৬ শতাংশ উপসর্গহীন।

এসব ত’থ্যই গবেষকদের আশা দেখাচ্ছেন। বিশেষজ্ঞদের রিপোর্ট অনুযায়ী ৪০ শতাংশ ক’রোনা আ’ক্রান্তদের ক্ষেত্রে দেখা গেছে কোনো উপসর্গ নেই। এই রকম উপসর্গহীন ক’রোনাই ধীরে ধীরে ছড়াবে। যার ফলে একসময় ক’রোনার বিশেষ কোনো উপসর্গ থাকবে না। এতেই ক’রোনার প্র’কোপ কমার দিকে যাবে বলে আশা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিজ্ঞানীদের ধারণা এই হারে যদি অ্যাসিম্পট্যোম্যাটিক রো’গীর সংখ্যা বাড়ে, তবে তা ভাল লক্ষ্মণ। কারণ এই ভাবে ধীরে ধীরে ক’রোনা নিজের কার্যক্ষ’মতা হারাবে। কমে আসবে ক’রোনার মারণ প্র’কোপ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here