স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাধিকাপুর স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বাবার পরিচয় দেখিয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে রাধিকাপুর স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে

প্রথম যোগদান করেন তিনি। দীর্ঘ ১০ বছর যাবত তিনি মাঝে মাঝে বিভিন্ন অজুহাতে ছুটি নিয়ে যাতায়াত করেন ভারতে। এর মধ্যে ক’রোনাকালে মাতৃত্বকালীন ছুটি নিয়ে বাংলাদেশে থাকার কথা থাকলেও তিনি বর্তমানে অবস্থান করছেন ভারতে।

এ বি’ষয়ে প্রধান শিক্ষকের বাবা জগদীশ চন্দ্র রায় জানান, আমার মে’য়ের বিয়ে হয়েছে নওগাঁ জে’লায়। তার স্বা’মী ভারতের দিল্লিতে বসবাস করেন। এখন আমার মে’য়ে সেখানেই আছে। ক’রোনার জন্য আসতে পারছে না। আমার মে’য়ে মাতৃত্বকালীন ৬ মাসের ছুটি নিয়ে

তার স্বা’মীর কাছে গিয়েছে। এদিকে মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও টানা ৩ মাস যাবৎ তিনি বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত। এ নিয়ে দীর্ঘ ৯ মাসেও তিনি বাংলাদেশে ফেরেনি। স্থানীয়রা বলেন, প্রধান শিক্ষক না থাকায় বিদ্যালয়ের অনেক স’মস্যা হচ্ছে। এ ছাড়া আশপাশে লোকজনের

কাছে সুনীতি রানীর বাড়ির ঠিকানা সম্প’র্কে জানতে চাওয়া হলে তারা জানান, তার বাড়ি পীরগঞ্জ উপজে’লার চাঁদপুর গ্রামে। এরপর চাঁদপুর গ্রামে গিয়ে উক্ত ঠিকানায় প্রধান শিক্ষক এর কোনো খোঁজ-খবর পাওয়া যায়নি। তবে প্রধান শিক্ষিকা রাধিকাপুর স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সুনীতি রানীর স্বা’মী

দেবাশিষ সাহা নামে কোনো ব্যক্তি চাঁদপুর গ্রামে বসবাস করেন না। বিশ্বস্থ সূত্রে জানা যায়, দেবাশিষ সাহা একজন ভারতীয় নাগরিক। তিনি দিল্লিতে বসবাস করেন। বর্তমানে সুনীতি রায় দ্বিতীয় স’ন্তান জ’ন্ম দেওয়ার জন্য গত নভেম্বর/২০১৯ থেকে এখন পর্যন্ত দিল্লিতে তার স্বা’মীর বাড়িতে অবস্থান করছেন। এ বি’ষয়ে সেই ক্লাস্টারের সহকারী

শিক্ষা অফিসার ফজলুল হক বলেন, তিনি মাতৃত্বকালীন ছুটি নেন সেই ছুটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেও তিনি যোগদান করেননি। আমরা তার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পারিনি। তাকে শো’কজ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে পীরগঞ্জ উপজে’লা শিক্ষা অফিসার মো. হাবিবুল ইসলাম বলেন, আমি বি’ষয়টি অবগত হয়েছি। অ’ভিযোগ পেলে তার বি’রুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবেতোলপাড়!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here