খে’লোয়ার হি’সেবে ধা’নক্ষেতেও ভালো খে’লতে হবে মু’মিনুল

তারুণ্যই শক্তি, তারুণ্যই ভবিষ্যৎ। কিন্তু তারুণ্যের ওপর অতি নির্ভরতায় যদি ফল না পাওয়া যায় তাহলে কী করা উচিত? টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের সোজাসাপ্টা কথা,

‘নতুনদের দিয়ে কাজ না হলে অভিজ্ঞদের দিয়ে কাজ করানো উচিত।’ তবে দেশে কিংবা দেশের বাইরে খেলা হোক, উইকেট সম্পর্কে ধারণা নেওয়ার বিষয়ে অপটুতা দেখা যায় বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে।কাঙ্ক্ষিত ফলাফল না এলে অনেকেই উইকেটের আচরণকে দোষারোপ করেন। যদিও উইকেট ঠিকঠাক পড়তে পাড়াটাও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পেশাদারিত্বের আওতায় পড়ে।

পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে যেকোনো ধরনের উইকেটে মানিয়ে নেওয়ার জন্য কেমন মানসিকতা প্রয়োজন, এমন প্রশ্নের জবাবে মুমিনুল বলেন,‘পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে উইকেট ও কন্ডিশনকে অজুহাত হিসেবে দাঁড় করানো কখনও কাম্য নয়। আমিও এটা কখনও এটার সাথে একমত হব না।

পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে যদি ধানক্ষেতেও দেন ওখানেও ভালো খেলতে হবে।’ মুমিনুল বলেন, ‘তাই আমার কাছে মনে হয়, এসব অজুহাত না দিয়ে জয়ের জন্য আরও পেশাদার হলে ভালো হবে।’

তারুণ্যই শক্তি, তারুণ্যই ভবিষ্যৎ। কিন্তু তারুণ্যের ওপর অতি নির্ভরতায় যদি ফল না পাওয়া যায় তাহলে কী করা উচিত? টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের সোজাসাপ্টা কথা,

‘নতুনদের দিয়ে কাজ না হলে অভিজ্ঞদের দিয়ে কাজ করানো উচিত।’ তবে দেশে কিংবা দেশের বাইরে খেলা হোক, উইকেট সম্পর্কে ধারণা নেওয়ার বিষয়ে অপটুতা দেখা যায় বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে।কাঙ্ক্ষিত ফলাফল না এলে অনেকেই উইকেটের আচরণকে দোষারোপ করেন। যদিও উইকেট ঠিকঠাক পড়তে পাড়াটাও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পেশাদারিত্বের আওতায় পড়ে।

পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে যেকোনো ধরনের উইকেটে মানিয়ে নেওয়ার জন্য কেমন মানসিকতা প্রয়োজন, এমন প্রশ্নের জবাবে মুমিনুল বলেন,‘পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে উইকেট ও কন্ডিশনকে অজুহাত হিসেবে দাঁড় করানো কখনও কাম্য নয়। আমিও এটা কখনও এটার সাথে একমত হব না।

পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে যদি ধানক্ষেতেও দেন ওখানেও ভালো খেলতে হবে।’ মুমিনুল বলেন, ‘তাই আমার কাছে মনে হয়, এসব অজুহাত না দিয়ে জয়ের জন্য আরও পেশাদার হলে ভালো হবে।’

তারুণ্যই শক্তি, তারুণ্যই ভবিষ্যৎ। কিন্তু তারুণ্যের ওপর অতি নির্ভরতায় যদি ফল না পাওয়া যায় তাহলে কী করা উচিত? টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের সোজাসাপ্টা কথা,

‘নতুনদের দিয়ে কাজ না হলে অভিজ্ঞদের দিয়ে কাজ করানো উচিত।’ তবে দেশে কিংবা দেশের বাইরে খেলা হোক, উইকেট সম্পর্কে ধারণা নেওয়ার বিষয়ে অপটুতা দেখা যায় বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে।কাঙ্ক্ষিত ফলাফল না এলে অনেকেই উইকেটের আচরণকে দোষারোপ করেন। যদিও উইকেট ঠিকঠাক পড়তে পাড়াটাও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পেশাদারিত্বের আওতায় পড়ে।

পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে যেকোনো ধরনের উইকেটে মানিয়ে নেওয়ার জন্য কেমন মানসিকতা প্রয়োজন, এমন প্রশ্নের জবাবে মুমিনুল বলেন,‘পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে উইকেট ও কন্ডিশনকে অজুহাত হিসেবে দাঁড় করানো কখনও কাম্য নয়। আমিও এটা কখনও এটার সাথে একমত হব না।

পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে যদি ধানক্ষেতেও দেন ওখানেও ভালো খেলতে হবে।’ মুমিনুল বলেন, ‘তাই আমার কাছে মনে হয়, এসব অজুহাত না দিয়ে জয়ের জন্য আরও পেশাদার হলে ভালো হবে।’

About admin

Check Also

সবাইকে অবাক করে ক্রিকেট বোর্ড থেকে পদত্যাগ করলেন আকরাম খান

‘ক্রিকেট অপারেশন ছাড়ছেন আকরাম খান’- সোমবার বিকেল চারটার পর ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন আকরাম খানের স্ত্রী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *