অবশেষে ক্ষমা চাইলেন ইশরাক –

সদ্য পদত্যাগ করা তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে নিয়ে অশালীন ও শিষ্টাচার বহির্ভূত কথাবার্তার কারণে এবার ভিডিওবার্তায় ক্ষমা চেয়েছেন বিএনপি নেতা ইশরাক হোসেন।ভিডিও বার্তায় ইশরাক বলেন, কিছুদিন আগে আমি একটি সভায় বক্তব্য দিচ্ছিলাম।

সেখানে আমি বক্তব্য দিতে গিয়ে এক পর্যায়ে আবেগ ধরে রাখতে পারিনি এবং রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত এবং অশালীন কিছু শব্দব্যবহার করেছি একজন সদ্য বিদায়ী মন্ত্রীর বিরুদ্ধে।তিনি বলেন, আমাদের যারা দর্শক শ্রোতা রয়েছেন,

যারা নিয়মিত দেখেন আমাকে আমার বক্তব্য শোনেন, অনেক মুরব্বী রয়েছেন অনেক নতুন প্রজন্মের ভাইয়েরা বোনেরা রয়েছেন আমি তাদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী যে এই ভুলটি আমার হয়ে গিয়েছে। আমি আগামীতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো যেন এই ভুলটি না ঘটে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, আমি খুব লজ্জিত মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন আমাদের পিতৃতুল্য, আমাদের অভিভাবকতুল্য আমাদের মাননীয় মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র নেতৃবৃন্দ। দর্শক সারিতেও অনেক মুরব্বীজনেরা ছিলেন। আমি কোনও অযুহাত হিসেবে বলতে চাচ্ছি না, জাস্ট আপনাদেরকে প্রেক্ষাপটটা বর্ণনা করতে চাচ্ছি।

তিনি বলেন, আমি আসার পথে ও যাওয়ার পথে একটি ভিডিও শুনছিলাম, যেখানে আমাদের নেত্রী। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া অসুস্থ, স্পর্শকাতর অবস্থায় বিএনপি নেতাকর্মীরা রয়েছে সেই অবস্থায় আমাদেরকে কথাগুলো মন্তব্য গুলো আঘাত করে এবং আমি ব্যক্তিগতভাবে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলি।

এটি কোনোভাবেই কাম্য না।ইশরাক বলেন, আমরা নতুন প্রজন্ম যারা রাজনীতিতে আসছি তারা রাজনৈতিক শিষ্টাচার পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে বলে আসছি, পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা উচিৎ একে অপরের প্রতিসহনশীল ও শ্রদ্ধাশীল হওয়া উচিৎ।

তিনি আরও বলেন, সবকিছু মিলে আমি মাননীয় মহাসচিব ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দের সঙ্গে দেখা করে ক্ষমা প্রার্থনা করেছি। আজকে যারা এই ভিডিওটি দেখছেন আমি তাদের কাছেও ক্ষমা চাইছি।

বিশেষ করে আমার কাছে যারা প্রত্যাশা রাখেন সুস্থ ধারার রাজনীতির তাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি। আপনারা আমাকে এই একটি ভুলের জন্য ক্ষমা করে দেবেন এবং আমাকে আমার সার্বিক কর্মকাণ্ড মূল্যায়ণ না করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, আমি আসার পথে ও যাওয়ার পথে একটি ভিডিও শুনছিলাম, যেখানে আমাদের নেত্রী। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া অসুস্থ, স্পর্শকাতর অবস্থায় বিএনপি নেতাকর্মীরা রয়েছে সেই অবস্থায় আমাদেরকে কথাগুলো মন্তব্য গুলো আঘাত করে এবং আমি ব্যক্তিগতভাবে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলি।

এটি কোনোভাবেই কাম্য না।ইশরাক বলেন, আমরা নতুন প্রজন্ম যারা রাজনীতিতে আসছি তারা রাজনৈতিক শিষ্টাচার পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে বলে আসছি, পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা উচিৎ একে অপরের প্রতিসহনশীল ও শ্রদ্ধাশীল হওয়া উচিৎ।

তিনি আরও বলেন, সবকিছু মিলে আমি মাননীয় মহাসচিব ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দের সঙ্গে দেখা করে ক্ষমা প্রার্থনা করেছি। আজকে যারা এই ভিডিওটি দেখছেন আমি তাদের কাছেও ক্ষমা চাইছি।

বিশেষ করে আমার কাছে যারা প্রত্যাশা রাখেন সুস্থ ধারার রাজনীতির তাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি। আপনারা আমাকে এই একটি ভুলের জন্য ক্ষমা করে দেবেন এবং আমাকে আমার সার্বিক কর্মকাণ্ড মূল্যায়ণ না করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

About admin

Check Also

রুমিন ফারহানাকে আটকের পর, ফেসবুকে স্ট্যাটাসের মাধ্যমে চোখ ধাধানো জবাব দিলেন।

বিএনপির সমাবেশে যাওয়ার পথে ব্যারিষ্টার রুমিন ফারহানাকে পথে গাড়ি আটক করে রেখে দেয় পুলিশ। দীর্ঘ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *