না জেনে বাবার সাবেক স্ত্রীকে বিয়ে করলো ছেলে

এক নারীকে ভালোবেসে বিয়ে করেন এক সৌদি নাগরিক। বিয়ের বিষয়টি সাথে সাথে পরিবারকে জানাননি ওই ব্যক্তি। এরপর কেটে গেছে ৬ বছর। তাদের পরিবারে জন্ম নেয় এক পুত্র সন্তান।

ততদিনে ওই ব্যক্তি সিদ্ধান্ত নিলেন নিজের স্ত্রীকে পরিবারের সাথে পরিচয় করিয়ে দিবেন। যেই ভাবনা সেই কাজ। বউ-সন্তান নিয়ে নিজের মা-বাবার সাথে সাক্ষাৎ করতে যান ওই ব্যক্তি। তখনই ঘটে বিপত্তি।

স্ত্রীকে নিয়ে যখন বাবা-মায়ের সাথে দেখা করতে যান তখন চমকে ওঠেন ওই ব্যক্তির বাবা। দেখেন ছেলের বর্তমান স্ত্রী ১০ বছর আগে তার স্ত্রী ছিল। এক দশক আগে আগে একই নারীর সাথে সৌদি রীতি অনুযায়ী ‘মিসিয়ার বিবাহ’ করেন তার বাবা।

‘মিসিয়ার বিবাহ’ অর্থ হচ্ছে, গোপনে চুক্তিভিত্তিক বিয়ে, যেখানে নারী বিবাহিতা স্ত্রীর মতো অধিকার পেয়ে থাকেন। সেই বিবাহবন্ধন যদিও কিছুদিন পরই তিনি ছিন্ন করে দিয়েছিলেন।

পরবর্তীতে এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়লে, সৌদি র‍য়্যাল কোর্টের উপদেষ্টা আব্দুল্লাহ আল মুতলাক একটি ফতোয়া জারি করেন। সেই ফতোয়া অনুযায়ী, তাদের পরিবারে জন্ম নেয়া সন্তান বৈধ হলেও দুইজনের বিবাহ সম্পর্ক বৈধ নয়। এতে বাবার সাবেক ও নিজের বর্তমান স্ত্রীকে তালাক দিতে বাধ্য হয় ওই ব্যক্তি।

আরও পড়ুন: ঘরে বসেই কাবার ‘হাজরে আসওয়াদ’ ছুঁয়ে দেখতে পারবেন মুসলিমরাপ্রসঙ্গত, ইসলাম ধর্মের নিয়ম অনুযায়ী, পিতা কিংবা পিতামহের সাবেক স্ত্রীরা পুত্র এবং নাতিদের বিয়ে করার অনুমতি নেই, এমনকি তারা যদি জন্ম নাও দিয়ে থাকে।

এক নারীকে ভালোবেসে বিয়ে করেন এক সৌদি নাগরিক। বিয়ের বিষয়টি সাথে সাথে পরিবারকে জানাননি ওই ব্যক্তি। এরপর কেটে গেছে ৬ বছর। তাদের পরিবারে জন্ম নেয় এক পুত্র সন্তান।

ততদিনে ওই ব্যক্তি সিদ্ধান্ত নিলেন নিজের স্ত্রীকে পরিবারের সাথে পরিচয় করিয়ে দিবেন। যেই ভাবনা সেই কাজ। বউ-সন্তান নিয়ে নিজের মা-বাবার সাথে সাক্ষাৎ করতে যান ওই ব্যক্তি। তখনই ঘটে বিপত্তি।

স্ত্রীকে নিয়ে যখন বাবা-মায়ের সাথে দেখা করতে যান তখন চমকে ওঠেন ওই ব্যক্তির বাবা। দেখেন ছেলের বর্তমান স্ত্রী ১০ বছর আগে তার স্ত্রী ছিল। এক দশক আগে আগে একই নারীর সাথে সৌদি রীতি অনুযায়ী ‘মিসিয়ার বিবাহ’ করেন তার বাবা।

‘মিসিয়ার বিবাহ’ অর্থ হচ্ছে, গোপনে চুক্তিভিত্তিক বিয়ে, যেখানে নারী বিবাহিতা স্ত্রীর মতো অধিকার পেয়ে থাকেন। সেই বিবাহবন্ধন যদিও কিছুদিন পরই তিনি ছিন্ন করে দিয়েছিলেন।

পরবর্তীতে এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়লে, সৌদি র‍য়্যাল কোর্টের উপদেষ্টা আব্দুল্লাহ আল মুতলাক একটি ফতোয়া জারি করেন। সেই ফতোয়া অনুযায়ী, তাদের পরিবারে জন্ম নেয়া সন্তান বৈধ হলেও দুইজনের বিবাহ সম্পর্ক বৈধ নয়। এতে বাবার সাবেক ও নিজের বর্তমান স্ত্রীকে তালাক দিতে বাধ্য হয় ওই ব্যক্তি।

আরও পড়ুন: ঘরে বসেই কাবার ‘হাজরে আসওয়াদ’ ছুঁয়ে দেখতে পারবেন মুসলিমরাপ্রসঙ্গত, ইসলাম ধর্মের নিয়ম অনুযায়ী, পিতা কিংবা পিতামহের সাবেক স্ত্রীরা পুত্র এবং নাতিদের বিয়ে করার অনুমতি নেই, এমনকি তারা যদি জন্ম নাও দিয়ে থাকে।

সূত্রে: গালফ নিউজ

About admin

Check Also

নতুন আইনঃ পুরুষদের ন্যূনতম দুটি বিয়ে না করলেই যাবজ্জীবন জেল হবে

আফ্রিকার ছোট্ট দেশ এরিত্রিয়ার সমস্ত পু’রুষকে ন্যূনতম দু’টি বিবাহ করতেই হবে,যা আইনে স্প’ষ্ট করে বলা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.