ছাগলের সুন্নাতে খাৎনা; ৩০০ মানুষের ভূড়িভোজ করালেন নিঃসন্তান দম্পতি

তাঁদের দম্পতি জীবন প্রায় ২৫ বছর। কিন্তু কোলজুড়ে আজও আসেনি কোন সন্তান। দীর্ঘ দম্পতি জীবনে অসংখ্য আত্মীয় স্বজনদের অনুষ্ঠান বাড়িতে অংশগ্রহন করেছেন। ভূড়িভোড়ে অংশ নিয়েছেন। কিন্তু কাউকে দাওয়াত দিয়ে বাড়িতে আনতে পারেনি।

তাই আত্মতুষ্টির জন্য এক ব্যতিক্রম আয়োজন করেছেন এই দম্পতি। বাড়িতে পালিত একটি ছাগল দুইটা বাচ্চা দিয়েছেন। সেই বাচ্চা দুটোকেই তাঁরা সুন্নাতে খাৎনা দিয়েছেন। রঙিন কাপড়ে সাজিয়েছে বাচ্চা দুটোকে। প্রায় তিনশ স্বজন ও প্রতিবেশীদের দাওয়াত করে ভূড়িভোজ করিয়েছেন তাঁরা।

এমন ব্যতিক্রমী ঘটনা ঘটেছে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার নন্দনালপুর ইউনিয়নের কাশেমপুর গ্রামে। দম্পতি হলেন ওই গ্রামের দিনমজুর ওহাব ও লাইলী বেগম।এদিকে ব্যতিক্রমী এমন আয়োজনের খবর ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। খবর পেয়ে উৎসুক জনতা তাঁদের বাড়িতে ভিড় করছেন ঘটনা জানতে ও ছাগলের বাচ্চা দেখতে।

এলাকাবাসী জানায়, ওহাব ও লাইলী বেগম ২৫ বছর পূর্বে সংসার বাঁধেন। কিন্তু ২৫ বছরের বিবাহিত জীবনে তাদের ঘরে কোন সন্তান জন্ম গ্রহণ করেনি। তবে একটি ছাগলের দুটি বাচ্চা হয়েছে।

তাই লোকজন সাথে করে নিয়ে তাদের সুন্নাতে খাৎনার আয়োজন করে। গত বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে আজ শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে অনুষ্ঠান। এ অনুষ্ঠানে ছাগল দুটিকে সুন্দর করে সাজিয়ে রাখা হয় । গ্রামের প্রায় ৩০০ মানুষকে ভুরিভোজ করায় ওহাব ও লাইলি দম্পতি।

এবিষয়ে দিনমজুর ওহাব বলেন, ‘ ২৫ বছর বিবাহিত জীবনে ঘরে কোন সন্তান জন্ম না নেওয়ায় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিলাম। এবার আমার বাড়িতে একটি ছাগল দুটি বাচ্চা জন্ম দেয় । তাই আত্নতুষ্ট্রির জন্য এমন আয়োজন করেছি।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিতান কুমার মন্ডল বলেন, ‘সাংবাদিকদের মাধ্যমে এমন খবর শুনেছি। তবে দম্পতির সাথে কোন কথা হয়নি।’

এমন ব্যতিক্রমী ঘটনা ঘটেছে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার নন্দনালপুর ইউনিয়নের কাশেমপুর গ্রামে। দম্পতি হলেন ওই গ্রামের দিনমজুর ওহাব ও লাইলী বেগম।এদিকে ব্যতিক্রমী এমন আয়োজনের খবর ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। খবর পেয়ে উৎসুক জনতা তাঁদের বাড়িতে ভিড় করছেন ঘটনা জানতে ও ছাগলের বাচ্চা দেখতে।

এলাকাবাসী জানায়, ওহাব ও লাইলী বেগম ২৫ বছর পূর্বে সংসার বাঁধেন। কিন্তু ২৫ বছরের বিবাহিত জীবনে তাদের ঘরে কোন সন্তান জন্ম গ্রহণ করেনি। তবে একটি ছাগলের দুটি বাচ্চা হয়েছে।

তাই লোকজন সাথে করে নিয়ে তাদের সুন্নাতে খাৎনার আয়োজন করে। গত বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে আজ শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে অনুষ্ঠান। এ অনুষ্ঠানে ছাগল দুটিকে সুন্দর করে সাজিয়ে রাখা হয় । গ্রামের প্রায় ৩০০ মানুষকে ভুরিভোজ করায় ওহাব ও লাইলি দম্পতি।

এবিষয়ে দিনমজুর ওহাব বলেন, ‘ ২৫ বছর বিবাহিত জীবনে ঘরে কোন সন্তান জন্ম না নেওয়ায় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিলাম। এবার আমার বাড়িতে একটি ছাগল দুটি বাচ্চা জন্ম দেয় । তাই আত্নতুষ্ট্রির জন্য এমন আয়োজন করেছি।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিতান কুমার মন্ডল বলেন, ‘সাংবাদিকদের মাধ্যমে এমন খবর শুনেছি। তবে দম্পতির সাথে কোন কথা হয়নি।’

About admin

Check Also

চলন্ত মাছকে ছুতেই মা,রা গেল কুমির। ভিডিও তুমুল ভাইরাল । (দেখুন ভিডিও)

কুমির, অ্যালিগেটর ও ঘড়িয়ালরা সাধারণ দৃ’ষ্টিতে একই রমক দেখতে হলেও,জীববিজ্ঞানের দৃ’ষ্টিতে এরা পৃথক বর্গের অ’ন্তর্গত। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *