‘বয়কট কক্সবাজার’ স্লোগানে ফুঁসে উঠছে সোশ্যাল মিডিয়া

রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী থেকে কক্সবাজার বেড়াতে গিয়ে সংঘবদ্ধ রে’ফ শিকার হয়েছেন এক নারী। স্বামী-সন্তানকে জিম্মি করে হত্যার ভয় দেখিয়ে তাকে রে’ফ করেন তিন যুবক। ওই ঘটনায় হোটেলের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে দুজনকে শনাক্ত করা হয়েছে।

যখন ওই নারীকে ছুরির ভয় দেখিয়ে টেনে সিএনজিতে তোলা হয় তখন তিনি চিৎকার করেন। আশপাশে লোকজনও ছিল। সেই অবস্থায় মুখ চেপে ধরে তুলে নিয়ে গিয়ে রে’ফ করে তিন যুবক। এগিয়ে আসেনি কেউ।

প্রকাশ্যে দেশের অন্যতম পর্যটন এলাকায় এমন ঘটনায় ক্ষোভ আর নিন্দায় সোশ্যাল মিডিয়া ফুঁসে উঠেছে। অনেকের বক্তব্য এক বিন্দুতে এসে ঠেকছে আর তা হলো-#বয়কট_কক্সবাজার। ‘দেশের অন্যতম পর্যটন এলাকা অনিরাপদ কেন? কক্সবাজারের নিরাপত্তাব্যবস্থা এমন কেন?’

ভ্রমণ গ্রুম্প ট্র্যাভেলার্স অফ বাংলাদেশে হাসান রাকিব নামে একজন লিখেছে, আমাদের দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটন স্পটের কথা বলতে গেলে সবার প্রথমেই আসবে কক্সবাজারের নাম।

সেই হিসেবে সবচেয়ে নিরাপদ জায়গার নাম হওয়ার কথা ছিলো কক্সবাজার এবং সেইন্টমার্টিন, যদি আমার ভুল না হয় কিছুদিন আগেও সেইন্টমার্টিনে স্থানীয় লোকজন দ্বারা কিছু ইয়াং ছেলেদের মারা হইছে।আমরা যারা টুকটাক ট্রাভেল করি তাদের মেইন প্রায়োরিটি থাকে যদি নিরাপত্তা বর্তমানে সেই নিরাপত্তা নিচের ছবিতেই স্পষ্ট ।

আমাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব যেমন প্রশাসনের তেমনি সেখানকার স্থানীয় মানুষদের। নিজের/ নিজের ফ্যামিলির নিরাপত্তার চেয়ে ভ্রমণ জরুরি না। যে স্থানে স্থানীয় মানুষ (সবাই না) ক্ষমতা দেখায় সেইটা আর যাই হোক পর্যটন স্পট হইতে পারে না।

আজ যারা পর্যটক দের সাথে এমন কুকুরের মত আচরন করতেছে তাদেরও পেট চলে আল্লাহর রহমতে আমাদের মত পর্যটকের টাকায়। আর তারা আমাদের অভ্যর্থনা জানায় ৪০০ টাকায় আলু ভর্তা ভাত দিয়ে।

তারা আমাদের হেনস্থার শিকার করতেছে, চাইলে আপনিও পারেন তাদেরকে মানুষের মত মানুষ করে দিতে। কক্সবাজারে সরাসরি পর্যটন শিল্পের ব্যবসার সাথে যারা জড়িত তাদের সারা বছর চলে নভেম্বর টু মার্চের ইনকাম দিয়ে,

এখন চিন্তা করেন যদি এই সিজন টায় আমরা ১৫ টা দিন কক্সবাজার ভ্রমণ বন্ধ রাখি তাদের কি অবস্থা হবে!! এই ১৫ টা দিনেই আমরা পাইতে পারি ভবিষ্যতের নিরাপদ কক্সবাজার।

কাউকে যখন দিতেই থাকবেন সে ব্যাকষ্টোরি ভুলে যাবে একটু প্লেট টা টান দিয়ে ষ্টোরিটা মনে করিয়ে দেওয়া আমাদেরই দায়িত্ব। অনেকেরই এখানে ভালো অভিজ্ঞতা থাকতে পারে কক্সবাজার নিয়ে তারা প্লিজ কিছু বলতে আইসেন না কারন পরবর্তিবার হয়তো আমি/ আপনি!

প্রকৌশলী রাফিউজ্জামান সিফাত নামে একজন লিখেছে, যদি সত্যি কিছু করতে চান, প্রাথমিক ধাপে কক্সবাজার বয়কট করুন। ছয় মাসের জন্য। কেউ যাবেন না। কেউ না।দেশের কোন পর্যটক আগামী কয়েক ছয় মাস কক্সবাজার ভ্রমনে যাবেন না।বিশ্বাস করেন পরিস্থিতির খানিকটা সমাধান হবে। মায়ের ভালোবাসা ছাড়া পৃথিবীর আর সব কিছুই অর্থনৈতিক।

source: bdmorning

About admin

Check Also

শুধু কলেমা পড়ছিলাম। মনে হচ্ছিল, বাচ্চাদের মুখ বুঝি আর দেখা হলো না…

কা-রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জগামী একটি বাসে ডাকাতদের কবলে পড়েন টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. শফিকুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *