২২ বছর লিভ-ইনের পর বিয়ে, একে অন্যকে ছাড়া বাঁচতে পারবেন না

দীর্ঘ ২২ বছর লিভ-ইন করার পর ২০২০ সালের ১৭ জানুয়ারি বিয়ে করেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা দীপঙ্কর দে ও অভিনেত্রী দোলন দে। বিয়ের সময়ে দীপঙ্করের বয়স ছিল ৭৫ আর দোলনের ৪৯ বছর। বর্তমানে তাদের বয়স যথাক্রমে ৭৭ ও ৫১। গত পরশুদিন ছিল এই দম্পতির দ্বিতীয় বিবাহবার্ষিকী। বিশেষ এই দিনে তোলা ছবি ভক্তদের সঙ্গে শেয়ার করে নেন এই যুগল।

ছবিতে দেখা যায় চেয়ারে বসে আছেন অভিনেতা দীপঙ্কর দে। তার পরনে কাচা হলুদ রঙের টি-শার্ট। তার কাঁধে হাত রেখে দাঁড়িয়ে আছেন অভিনেত্রী দোলন দে। তার পরনেও কাচা হলুদ রঙের শাড়ি। গলায় মালা, সিঁথিতে সিঁদুর, খোঁপায় গোঁজা ফুল। দুজনের মুখেই স্মিত হাসির ঢেউ।

দোলন দের ফেসবুকে পোস্ট করা ছবিতে এমন লুকে দেখা যায় আলোচিত এই দম্পতিকে। একই রঙের পোশাক পরার কারণ ব্যাখ্যা করে দোলন দে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘শাড়িটি বেদান্ত মঠ থেকে উপহার পেয়েছিলাম। হঠাৎ কী মনে হলো তাই পরলাম। ওমা! দেখি টিটোদাও (দীপঙ্কর) প্রায় একই রঙের একটি গেঞ্জি বেছে নিয়েছে! হয়ে গেলো রংমিলন্তি।’

দীপঙ্কর ও দোলনের বয়সের ব্যবধান ২৬ বছর। এ নিয়ে কম কথা শুনতে হয়নি তাদের। সমাজের চোখরাঙানি তুচ্ছ করে একই ছাদের নিচে বসবাস করছেন তারা। এ বিষয়ে দোলন বলেন, ‘এখন আর আমায় কিছু বলতে হয় না! গতকালের কয়েকটি ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছিলাম।

ভাইরাল সেই সব ছবি। প্রচুর ভালোবাসা, আশীর্বাদ, শুভেচ্ছা পেয়েছি। তারই ফাঁকে একজন বাঁকা কথা বলেছিলেন। দেখলাম, বাকিরাই মুখের উপরে জবাব দিয়ে তাকে চুপ করিয়ে দিয়েছেন।’

টলিপাড়ায় প্রেম-বিয়ে বিচ্ছেদের ঘটনা নিত্য দিনই ঘটছে। এমন ভাঙনের কালেও কী করে অটুট দীপঙ্কর-দোলনের সম্পর্ক? নাকি পুরোটাই নিছক অভ্যাস? এমন প্রশ্নের জবাবে দোলন বলেন—‘নজর দেবেন না! আমরা খুব ভালো আছি। একে অন্যকে ছাড়া বাঁচতে পারব না।’

তাদের সুখী দাম্পত্য জীবনের রহস্য জানিয়ে দোলন বলেন, ‘টিটোদা আমাকে যেমন শাসন করে তেমনি সোহাগও করে। আমিও তাই। ফলে মিলেমিশে থাকতে থাকতে এতগুলো বছর কোথা দিয়ে কেটে গেলো বুঝতেই পারিনি!’

দোলন দের ফেসবুকে পোস্ট করা ছবিতে এমন লুকে দেখা যায় আলোচিত এই দম্পতিকে। একই রঙের পোশাক পরার কারণ ব্যাখ্যা করে দোলন দে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘শাড়িটি বেদান্ত মঠ থেকে উপহার পেয়েছিলাম। হঠাৎ কী মনে হলো তাই পরলাম। ওমা! দেখি টিটোদাও (দীপঙ্কর) প্রায় একই রঙের একটি গেঞ্জি বেছে নিয়েছে! হয়ে গেলো রংমিলন্তি।’

দীপঙ্কর ও দোলনের বয়সের ব্যবধান ২৬ বছর। এ নিয়ে কম কথা শুনতে হয়নি তাদের। সমাজের চোখরাঙানি তুচ্ছ করে একই ছাদের নিচে বসবাস করছেন তারা। এ বিষয়ে দোলন বলেন, ‘এখন আর আমায় কিছু বলতে হয় না! গতকালের কয়েকটি ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছিলাম।

ভাইরাল সেই সব ছবি। প্রচুর ভালোবাসা, আশীর্বাদ, শুভেচ্ছা পেয়েছি। তারই ফাঁকে একজন বাঁকা কথা বলেছিলেন। দেখলাম, বাকিরাই মুখের উপরে জবাব দিয়ে তাকে চুপ করিয়ে দিয়েছেন।’

টলিপাড়ায় প্রেম-বিয়ে বিচ্ছেদের ঘটনা নিত্য দিনই ঘটছে। এমন ভাঙনের কালেও কী করে অটুট দীপঙ্কর-দোলনের সম্পর্ক? নাকি পুরোটাই নিছক অভ্যাস? এমন প্রশ্নের জবাবে দোলন বলেন—‘নজর দেবেন না! আমরা খুব ভালো আছি। একে অন্যকে ছাড়া বাঁচতে পারব না।’

তাদের সুখী দাম্পত্য জীবনের রহস্য জানিয়ে দোলন বলেন, ‘টিটোদা আমাকে যেমন শাসন করে তেমনি সোহাগও করে। আমিও তাই। ফলে মিলেমিশে থাকতে থাকতে এতগুলো বছর কোথা দিয়ে কেটে গেলো বুঝতেই পারিনি!’

About admin

Check Also

নতুন আইনঃ পুরুষদের ন্যূনতম দুটি বিয়ে না করলেই যাবজ্জীবন জেল হবে

আফ্রিকার ছোট্ট দেশ এরিত্রিয়ার সমস্ত পু’রুষকে ন্যূনতম দু’টি বিবাহ করতেই হবে,যা আইনে স্প’ষ্ট করে বলা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.