মর্গের ফ্রিজে ৭ ঘণ্টা থাকার পরে বেঁচে উঠল ‘মৃত’ ব্যক্তি!

দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হওয়া সুরেশ কুমারকে মৃত ঘোষণার পর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গের ফ্রিজে রেখেছিলেন চিকিৎসকরা। সাত ঘণ্টা ফ্রিজে থাকার পর মৃত সুরেশের দেহে প্রাণ ফিরল! অবিশ্বাস্য এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদে। চ্যানেল আই

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ-মিস্ত্রি সুরেশ বাইক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন। তাকে জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য সুরেশের দেহ মর্গের ফ্রিজে রাখা হয়। সুরেশের পরিবারকে ডেকে দেহ শনাক্ত করিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য অনুমতিও নেওয়া হয়।

ততক্ষণে বেশ কয়েক ঘণ্টা কেটে গিয়েছে। এর মধ্যেই সুরেশের শ্যালিকা মধুবালা খেয়াল করেন দেহটি নড়ছে। পরিবারের অন্য সদস্যরাও বিষয়টি খেয়াল করেন। সঙ্গে সঙ্গে তারা চিকিৎসককে দেহটি ভাল ভাবে পরীক্ষা করার অনুরোধ করেন।

চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখার পর আবার হাসপাতালে সুরেশকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করানো হয়। পরিবারের দাবি, চিকিৎসা চলছে সুরেশের। তার জ্ঞান ফেরেনি। তবে চিকিৎসকরা আশ্বাস দিয়েছেন সঙ্কট কেটে গিয়েছে।

দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হওয়া সুরেশ কুমারকে মৃত ঘোষণার পর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গের ফ্রিজে রেখেছিলেন চিকিৎসকরা। সাত ঘণ্টা ফ্রিজে থাকার পর মৃত সুরেশের দেহে প্রাণ ফিরল! অবিশ্বাস্য এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদে। চ্যানেল আই

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ-মিস্ত্রি সুরেশ বাইক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন। তাকে জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য সুরেশের দেহ মর্গের ফ্রিজে রাখা হয়। সুরেশের পরিবারকে ডেকে দেহ শনাক্ত করিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য অনুমতিও নেওয়া হয়।

ততক্ষণে বেশ কয়েক ঘণ্টা কেটে গিয়েছে। এর মধ্যেই সুরেশের শ্যালিকা মধুবালা খেয়াল করেন দেহটি নড়ছে। পরিবারের অন্য সদস্যরাও বিষয়টি খেয়াল করেন। সঙ্গে সঙ্গে তারা চিকিৎসককে দেহটি ভাল ভাবে পরীক্ষা করার অনুরোধ করেন।

চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখার পর আবার হাসপাতালে সুরেশকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করানো হয়। পরিবারের দাবি, চিকিৎসা চলছে সুরেশের। তার জ্ঞান ফেরেনি। তবে চিকিৎসকরা আশ্বাস দিয়েছেন সঙ্কট কেটে গিয়েছে।

দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হওয়া সুরেশ কুমারকে মৃত ঘোষণার পর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গের ফ্রিজে রেখেছিলেন চিকিৎসকরা। সাত ঘণ্টা ফ্রিজে থাকার পর মৃত সুরেশের দেহে প্রাণ ফিরল! অবিশ্বাস্য এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদে। চ্যানেল আই

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ-মিস্ত্রি সুরেশ বাইক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন। তাকে জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য সুরেশের দেহ মর্গের ফ্রিজে রাখা হয়। সুরেশের পরিবারকে ডেকে দেহ শনাক্ত করিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য অনুমতিও নেওয়া হয়।

ততক্ষণে বেশ কয়েক ঘণ্টা কেটে গিয়েছে। এর মধ্যেই সুরেশের শ্যালিকা মধুবালা খেয়াল করেন দেহটি নড়ছে। পরিবারের অন্য সদস্যরাও বিষয়টি খেয়াল করেন। সঙ্গে সঙ্গে তারা চিকিৎসককে দেহটি ভাল ভাবে পরীক্ষা করার অনুরোধ করেন।

চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখার পর আবার হাসপাতালে সুরেশকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করানো হয়। পরিবারের দাবি, চিকিৎসা চলছে সুরেশের। তার জ্ঞান ফেরেনি। তবে চিকিৎসকরা আশ্বাস দিয়েছেন সঙ্কট কেটে গিয়েছে।

About admin

Check Also

উত্তরায় বিস্ফোরণে দগ্ধ একে একে ৮ জনেরই মৃত্যু

রাজধানীর তুরাগের কামারপাড়ায় ভাঙারির দোকানে বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধ ৮ জনের ই মৃত্যু ঘটেছে। সর্বশেষ শুক্রবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.