১৬ বছরের কিশোর হাত ধরে উধাও তিন সন্তানের জননী

কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরবে তিন সন্তানের জননীকে নিয়ে উধাও হয়ে গেছে এক কিশোর। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় দুই পরিবারের সদস্যরাই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।ফলে এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় চলছে।ভৈরবের কালীপুরে ঘটেছে এই ঘটনা।

তিন সন্তানের জননীর নাম আবুনি বেগম (৩৬)। তিনি কালীপুর গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী পিয়ার মিয়ার স্ত্রী। আর কিশোরের নাম তানভির হোসেন (১৬)। সে একই এলাকার প্রবাসী খলিল মিয়ার ছেলে।পিয়ার মিয়ার দাবি, গত ১৩ নভেম্বর দুপুরে তানভির তার স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়ে গেছে। পালানোর সময় তার ঘর থেকে লাখ টাকাসহ শিশুপুত্র রিফাতকেও সাথে নিয়ে গেছে তারা।

অপরদিকে তানভিরের মা স্বপ্না বেগমের অভিযোগ, তার ছেলের কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। ১৩ নভেম্বর পিঠা খেয়ে বাসা থেকে বের হয়ে সে আর ফিরে আসেনি।কে বা কারা তার ছেলেকে তুলে নিয়ে গেছে বলে দাবি স্বপ্না বেগমের। এই ঘটনা নিয়ে গত ১৭ নভেম্বর রাতে উভয় পরিবারের পক্ষ থেকে ভৈরব থানায় পৃথক দুটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়।

এদিকে একজন ছেলের বয়সী কিশোরের সাথে তিন সন্তানের জননী প্রেম করে পালিয়ে গেছে প্রথমে বিষয়টি লজ্জায় পুলিশের কাছে বলতে পারছিলেন না স্বামী পিয়ার মিয়া। পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে সব তথ্য।স্থানীয়রা জানান, পিয়ার মিয়া ব্যবসার সুবাধে ঢাকায় থাকেন। ফলে পাশের বাড়ির তানভিরের সাথে পিয়ার মিয়ার স্ত্রী তিন সন্তানের জননী আবুনি বেগমের

প্রেমের সর্ম্পক গড়ে ওঠে। আর সুযোগ বুঝে লোকলজ্জা ভুলে উধাও হয়ে যায় তারা। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভৈরব থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বাহারুল খাঁন বাহার জানান, আমরা দু’জনকে উদ্ধার করতে চেষ্টা করছি। কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরবে তিন সন্তানের জননীকে নিয়ে উধাও হয়ে গেছে এক কিশোর। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় দুই পরিবারের সদস্যরাই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ফলে এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় চলছে।ভৈরবের কালীপুরে ঘটেছে এই ঘটনা। তিন সন্তানের জননীর নাম আবুনি বেগম (৩৬)। তিনি কালীপুর গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী পিয়ার মিয়ার স্ত্রী। আর কিশোরের নাম তানভির হোসেন (১৬)। সে একই এলাকার প্রবাসী খলিল মিয়ার ছেলে।পিয়ার মিয়ার দাবি, গত ১৩ নভেম্বর দুপুরে তানভির তার স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়ে গেছে। পালানোর সময় তার ঘর থেকে লাখ টাকাসহ শিশুপুত্র রিফাতকেও সাথে নিয়ে গেছে তারা।

অপরদিকে তানভিরের মা স্বপ্না বেগমের অভিযোগ, তার ছেলের কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। ১৩ নভেম্বর পিঠা খেয়ে বাসা থেকে বের হয়ে সে আর ফিরে আসেনি।কে বা কারা তার ছেলেকে তুলে নিয়ে গেছে বলে দাবি স্বপ্না বেগমের। এই ঘটনা নিয়ে গত ১৭ নভেম্বর রাতে উভয় পরিবারের পক্ষ থেকে ভৈরব থানায় পৃথক দুটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়।

এদিকে একজন ছেলের বয়সী কিশোরের সাথে তিন সন্তানের জননী প্রেম করে পালিয়ে গেছে প্রথমে বিষয়টি লজ্জায় পুলিশের কাছে বলতে পারছিলেন না স্বামী পিয়ার মিয়া। পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে সব তথ্য।স্থানীয়রা জানান, পিয়ার মিয়া ব্যবসার সুবাধে ঢাকায় থাকেন। ফলে পাশের বাড়ির তানভিরের সাথে পিয়ার মিয়ার স্ত্রী তিন সন্তানের জননী আবুনি বেগমের

প্রেমের সর্ম্পক গড়ে ওঠে। আর সুযোগ বুঝে লোকলজ্জা ভুলে উধাও হয়ে যায় তারা। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভৈরব থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বাহারুল খাঁন বাহার জানান, আমরা দু’জনকে উদ্ধার করতে চেষ্টা করছি।

About admin

Check Also

পুর্ব শত্রুতার জেরে পুুকুরে বিষ দিয়ে ২ লাখ টাকার মাছ হত্যা

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হরিশংকরপুর ইউনিয়নের পানমী গ্রামে এক মাছ চাষীর পুকুরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.