তরমুজ বিক্রেতা ফেরাউনের বংশধর বললেন ওমর সানী

রাজধানীসহ দেশের অনেক অঞ্চলে কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে মৌসুমী ফল তরমুজ। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় সামাজিক মাধ্যমে অনেক সমালোচনাও হয়েছে। তারপরো কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর যোগসাজশে কেজি দরে তরমুজ বিক্রি বন্ধ করা যায়নি। এবার কেজির দরে তরমুজ বিক্রি নিয়ে মনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নব্বই দশকের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ওমর সানী।

দেশের তরমুজ ব্যবসায়ীদের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে আর কেজি দরেই তরমুজ কিনবেন না বলে প্রতিজ্ঞা করেছেন এ অভিনেতা। নিজের ফেসবুকে লিখেছেন – ফেরাউনের প্রথম ব্যবসা ছিল তরমুজের ব্যবসা। ফেরাউন তরমুজ পিস হিসেবে কিনে এনে দাঁড়ি পাল্লায় মেপে বিক্রি করতেন। মেপে অনেক দামে বিক্রি করার কারণে সে সময় সাধারণ মানুষ তরমুজ কিনে খেতে পারতেন না।

আজ থেকে তিন হাজার বছর আগে ফেরাউন ঠিকই মারা গিয়েছে। কিন্তু ফেরাউনের কিছু বংশধর বাংলাদেশে এখনো আছে। তারা রমজান আসলে সকল ধরনের পণ্যসামগ্রীর দাম বাড়িয়ে দেয়। আল্লাহ এদের হেদায়েত দান করুন। আমিন। আমরা কেজি দরে তরমুজ কিনব না। আমি প্রতিজ্ঞা করেছি, আপনি।

রাজধানীসহ দেশের অনেক অঞ্চলে কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে মৌসুমী ফল তরমুজ। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় সামাজিক মাধ্যমে অনেক সমালোচনাও হয়েছে। তারপরো কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর যোগসাজশে কেজি দরে তরমুজ বিক্রি বন্ধ করা যায়নি। এবার কেজির দরে তরমুজ বিক্রি নিয়ে মনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নব্বই দশকের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ওমর সানী।

দেশের তরমুজ ব্যবসায়ীদের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে আর কেজি দরেই তরমুজ কিনবেন না বলে প্রতিজ্ঞা করেছেন এ অভিনেতা। নিজের ফেসবুকে লিখেছেন – ফেরাউনের প্রথম ব্যবসা ছিল তরমুজের ব্যবসা। ফেরাউন তরমুজ পিস হিসেবে কিনে এনে দাঁড়ি পাল্লায় মেপে বিক্রি করতেন। মেপে অনেক দামে বিক্রি করার কারণে সে সময় সাধারণ মানুষ তরমুজ কিনে খেতে পারতেন না।

আজ থেকে তিন হাজার বছর আগে ফেরাউন ঠিকই মারা গিয়েছে। কিন্তু ফেরাউনের কিছু বংশধর বাংলাদেশে এখনো আছে। তারা রমজান আসলে সকল ধরনের পণ্যসামগ্রীর দাম বাড়িয়ে দেয়। আল্লাহ এদের হেদায়েত দান করুন। আমিন। আমরা কেজি দরে তরমুজ কিনব না। আমি প্রতিজ্ঞা করেছি, আপনি।

রাজধানীসহ দেশের অনেক অঞ্চলে কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে মৌসুমী ফল তরমুজ। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় সামাজিক মাধ্যমে অনেক সমালোচনাও হয়েছে। তারপরো কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর যোগসাজশে কেজি দরে তরমুজ বিক্রি বন্ধ করা যায়নি। এবার কেজির দরে তরমুজ বিক্রি নিয়ে মনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নব্বই দশকের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ওমর সানী।

দেশের তরমুজ ব্যবসায়ীদের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে আর কেজি দরেই তরমুজ কিনবেন না বলে প্রতিজ্ঞা করেছেন এ অভিনেতা। নিজের ফেসবুকে লিখেছেন – ফেরাউনের প্রথম ব্যবসা ছিল তরমুজের ব্যবসা। ফেরাউন তরমুজ পিস হিসেবে কিনে এনে দাঁড়ি পাল্লায় মেপে বিক্রি করতেন। মেপে অনেক দামে বিক্রি করার কারণে সে সময় সাধারণ মানুষ তরমুজ কিনে খেতে পারতেন না।

আজ থেকে তিন হাজার বছর আগে ফেরাউন ঠিকই মারা গিয়েছে। কিন্তু ফেরাউনের কিছু বংশধর বাংলাদেশে এখনো আছে। তারা রমজান আসলে সকল ধরনের পণ্যসামগ্রীর দাম বাড়িয়ে দেয়। আল্লাহ এদের হেদায়েত দান করুন। আমিন। আমরা কেজি দরে তরমুজ কিনব না। আমি প্রতিজ্ঞা করেছি, আপনি।

About admin

Check Also

পুর্ব শত্রুতার জেরে পুুকুরে বিষ দিয়ে ২ লাখ টাকার মাছ হত্যা

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হরিশংকরপুর ইউনিয়নের পানমী গ্রামে এক মাছ চাষীর পুকুরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.