পৃ’থিবীর সব থেকে ভ’য়ঙ্কর কা’রাগার, এখান কার শা’স্তির কথা শুনলে অ’পরাধ কারার কথা কখনো মাথায় আসবে না। দেখুন ভিডিও

কারাগার বলতে আমরা আসলে বুঝি আসামিদের শাস্তি প্রদানের একটি জায়গা। মানুষ যদি কোন অপরাধ করে থাকে তাহলে তার শাস্তি হোক এটা সবাই চায়। কিন্তু পৃথিবীতে এমন কিছু কারাগার রয়েছে

যার সম্পর্কে জানলে আপনি কোন অপরাধ করতে ভয় পাবেন। ওইসব কারাগারের আসামিদের তাদের অপরাধের তুলনায় অনেক বেশি শাস্তি প্রদান করা হয়। এসব কারাগারের বিস্তারিত জানলে আপনি বিশ্বাস করতে চাইবেন না। এসবের বিবরণ শুনলে আপনার গা শিউরে উঠবে।

এসব কারাগারে ছোটখাটো ভুলের জন্য এমন এমন শাস্তি প্রদান করা হয় যা সত্যিই খুবই অবাক করার মত। চলুন তাহলে আজকে আমরা জেনে নেই এমন কিছু কারাগারের ব্যাপারে। এমন একটি

কারাগার হলো ব্যাংকক থাইল্যান্ড এর কারাগার। ব্যাংকক থাইল্যান্ড কারাবন্দীদের ছোটখাট ভুল ত্রুটির কারণে নির্মম ধরনের সাজা প্রদান এবং শারীরিক নির্যাতনের জন্য এই কারণে বিশ্বজুড়ে সুখ্যাতি রয়েছে এই কারাগারে রাখা হয়। থাইল্যান্ডের যতসব কুখ্যাত আসামি আছে তাদেরকে রাখা হয় এই কারাগারটিতে।

১৯৩০ সালে গঠিত হয়। এটির ধারণক্ষমতা মাত্র 3000 কিন্তু এখন বর্তমানে এখানে আট হাজারেরও বেশি মানুষ বসবাস করে। এটির অবস্থা থাইল্যান্ডের অন্যান্য বস্তির চাইতেও বেশি খারাপ।

এখানের কোয়াদির খুবই নোংরা ভাবে বসবাস করে।মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের হাত পা এবং গলায় লোহার শিকল পরিয়ে রাখে এবং নতুন আসামিদের প্রথম তিন মাস শিকল পরিয়ে রাখা হয়। এই কারাগারের কারাবন্দীদের সংখ্যার তুলনায় অনেক কম অর্থায়ন করা হয়। যার কারণে এখানে খাদ্য ব্যবস্থা অনেক বাজে।

এখানকার আসামিরা নোংরা পরিবেশ এবং পচা বাসি খাবার খাওয়ার কারণে বেশিরভাগ সময়ই ভোগে ডায়রিয়া ম্যালেরিয়া আমাশয় ইত্যাদি রোগ বালাই তে। এখানে একটি ড্রেইন রয়েছে যেটি মেরামত করা প্রয়োজন কিন্তু কর্তৃপক্ষ তাতে কোন গুরুত্ব দেয় না এই ড্রেইনের থেকে এমন পচা গন্ধ আসে দম বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়।

সত্যিই কেউ স্বপ্নেও চাইবে না এমন কারাগারে গিয়ে থাকতে। ব্যাংককের আসামিদের বয়স বেশিরভাগই 25 এর নিচে। এসব কারাগারে যারা বাস করে তাদের কাছে মৃত্যু ও খুব ভালো।

এমন অবাক করা আরো কিছু কারাগার সম্পর্কে জানতে হলে আপনাকে অবশ্যই পুরো ভিডিওটি দেখতে হবে। এই ভিডিওটিতে মূলত এরকম ভয়ঙ্কর কিছু কারাগার সম্পর্কে বলা হয়েছে। নাম শুনলেও আপনার ভয় হবে। এসব কারাগারের আসামিদের এমন এমন শাস্তি প্রদান করা হয় যেটি একটি অপরাধ।

আমরা সবাই চাই অপরাধীর শাস্তি কতটুকুই হোক যত টুকু তার প্রাপ্য। অল্প অপরাধের জন্য অল্প শাস্তি এবং বেশি অপরাধের জন্য বেশি শাস্তি। সবাই যেন ন্যায় বিচার পায় সেটি নিশ্চিত করাই একটি দেশের সরকারের দায়িত্ব।

অপরাধী বলে তাকে যে কোনো শাস্তি দেওয়া যাবে বা তার সাথে যা ইচ্ছা তাই করা যাবে তা কিন্তু নয়। অপরাধীর অপরাধের ধরণ এবং তার বয়স অনুযায়ী তাকে শাস্তি প্রদান করতে হবে। সুবিচার পাওয়া প্রতিটি মানুষের অধিকার। অপরাধ করলে কেউ বেঁচে যাবে তা নয়। কিন্তু তাই বলে অপরাধের তুলনায় যদি শাস্তি বেশি হয়ে যায় তাহলে সেটিও হয়ে যাবে একটি অপরাধ যা একজন নাগরিক হিসেবে কারোই কাম্য নয়।

এইসব কারাগার সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে হলে আপনাকে ভিডিওটি অবশ্যই ভালো হবে দেখতে হবে আমি এখানে শুধুমাত্র একটি কারাগার নিয়ে বিস্তারিত লিখেছি ভিডিওটি দেখলে আপনি আরো অনেকগুলো কারাগার সম্পর্কে ধারনা পাবেন। নিচের লিংকে ক্লিক করলে আপনি ভিডিওটি দেখতে পাবেন। আর হ্যাঁ অবশ্যই কোনো অপরাধ করার আগে ভেবে নিবেন কারন এরকম শাস্তি দেয়া কারাগারে আপনাকেও যেতে হতে পারে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

About admin

Check Also

বাংলাদেশে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শ্রাবন্তী

প্রতিদিন সড়কে ঝরে যাচ্ছে একাধিক প্রাণ। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় বিক্ষোভ হলেও সময় গড়াতেই এসব …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *