মাশরাফিকে দেখে হাত-পা কাঁপছিল, কথা বলার সাহস পাইনি: সিয়াম

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে প্রথম সামনাসামনিদেখে কথা বলার সাহস পাননি ঢালিউডের এ সময়ের জনপ্রিয় নায়ক সিয়াম আহমেদ।সম্প্রতি এক জাতীয় দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন মাশরাফির প্রতি তার ভালোলাগার

কথা। বলেন, মাশরাফির সামনে গিয়ে কথা বলার সাহস হয়নি আমার, হাত-পা কাঁপছিল।সম্প্রতি সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে সিয়াম আহমেদ অভিনীত ‘মৃধা বনাম মৃধা’। ২৪ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি। এছাড়া নতুন বছরে আসবে তার আরেক ছবি ‘শান’।

ছবিটির ট্রেলার প্রকাশের পর সিয়ামের অ্যাকশন দৃশ্যগুলো বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে। সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ‘শান’ ছবির ট্রেলার প্রকাশ অনুষ্ঠানে বেশ হইচই পড়ে যায়।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে সিয়াম বলেন, আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। আমার মা–বাবাও। সবদিক থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আমাদের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। শহরের শিক্ষিত সমাজ ও অগ্রগামী প্রজন্মের আড্ডাটা বিশ্ববিদ্যালয়কেন্দ্রিক। আমরা চাচ্ছি, আমাদের কাজ তাদের কাছে নিয়ে যেতে। তারা তো আমাদের কাজ দেখতে হলে আসে।

ছবিটি মুক্তির আগেই তাই আমরা তাদের কাছে যেতে চেয়েছি। সাড়াটা একটু বেশি ছিল। কাঙ্ক্ষিত ও অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। ট্রেলার দেখতে এত লোক আসবেন, ধারণাই ছিল না। তাঁরা যে ভালোবাসা দেখিয়েছেন, যে পাগলামি করেছেন, সেটা তারকাদের প্রতি ভক্তদের ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ।

এটা যেকোনো শিল্পীর জন্য আশীর্বাদ।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই অনুষ্ঠান সূত্রে অনলাইনে এক ভক্তকে নিয়ে অনেকে কটাক্ষ করেছেন, বিষয়টি নজরে এসেছেন সিয়ামেরও।

তিনি বলেন, আমার খারাপ লেগেছে। আমরা কিন্তু আরেকজনের পছন্দ ঠিক করে দিতে পারি না। এক মানুষ আরেক মানুষকে পছন্দ করে ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ করেছেন। বিষয়টিকে সম্মান না দিলে অন্য শিল্পীদের ভালোবাসার রাস্তা বন্ধ হয়ে যাবে। আমাদের শিল্পীদের প্রতি মানুষের একটি বিরূপ ধারণা তৈরি হবে।

আমার মনে হয়, মেয়েটি যা করেছেন, ট্রল না করে সেটাকে ইতিবাচকভাবে নেওয়া উচিত। আমি ইতিবাচকভাবে নিয়েছি। ২০১৬ সালে আমি যখন মাশরাফিকে প্রথম সামনাসামনি দেখি, তাঁর সামনে গিয়ে কথা বলার সাহস হয়নি আমার, হাত-পা কাঁপছিল। কিন্তু অনেকেই তাঁর সঙ্গে ছবি তুলছিলেন। আমি যাইনি, আমার ভালোবাসা আমার মতো।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে সিয়াম বলেন, আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। আমার মা–বাবাও। সবদিক থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আমাদের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। শহরের শিক্ষিত সমাজ ও অগ্রগামী প্রজন্মের আড্ডাটা বিশ্ববিদ্যালয়কেন্দ্রিক। আমরা চাচ্ছি, আমাদের কাজ তাদের কাছে নিয়ে যেতে। তারা তো আমাদের কাজ দেখতে হলে আসে।

ছবিটি মুক্তির আগেই তাই আমরা তাদের কাছে যেতে চেয়েছি। সাড়াটা একটু বেশি ছিল। কাঙ্ক্ষিত ও অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। ট্রেলার দেখতে এত লোক আসবেন, ধারণাই ছিল না। তাঁরা যে ভালোবাসা দেখিয়েছেন, যে পাগলামি করেছেন, সেটা তারকাদের প্রতি ভক্তদের ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ।

এটা যেকোনো শিল্পীর জন্য আশীর্বাদ।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই অনুষ্ঠান সূত্রে অনলাইনে এক ভক্তকে নিয়ে অনেকে কটাক্ষ করেছেন, বিষয়টি নজরে এসেছেন সিয়ামেরও।

তিনি বলেন, আমার খারাপ লেগেছে। আমরা কিন্তু আরেকজনের পছন্দ ঠিক করে দিতে পারি না। এক মানুষ আরেক মানুষকে পছন্দ করে ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ করেছেন। বিষয়টিকে সম্মান না দিলে অন্য শিল্পীদের ভালোবাসার রাস্তা বন্ধ হয়ে যাবে। আমাদের শিল্পীদের প্রতি মানুষের একটি বিরূপ ধারণা তৈরি হবে।

About admin

Check Also

মরদেহ নিতে ম’র্গে হা’জির ৭ স্ত্রী, রুবেলের দাফন হবে যেখানে…অবশেষে নেওয়া হয়েছে সিদ্ধান্ত…

রাজধানীর উত্তরায় নির্মাণাধীন বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের ক্রেন থেকে গার্ডার ছিটকে নিহত আইয়ুব আলী …

Leave a Reply

Your email address will not be published.