বেতন দিতে পারিনি বলে স্কুল থেকে তাড়িয়ে দিতে চেয়েছিল: শাহরুখ খান

খ্যাতি কিংবা অর্থ বিত্তের কমতি নেই বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের। কিন্তু সবসময় তার জীবন এমন ছিল না। এক সময় বাবা-মা স্কুলের বেতন নির্দিষ্ট সময়ে পরিশোধ করতে পারেননি বলে তাকে স্কুল থেকে বের করে দেয়ায় কথা বলেছিল স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এমনটি জানিয়েছেন শাহরুখ সম্প্রতি দেয়া এক সাক্ষাৎকারে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।সাক্ষাৎকারে তিনি ভাগ করেন নেন জীবনে পাওয়া নানা কষ্টের কথাও। এই নায়ক জানান,

আর্থিক সমস্যার কারণে একবার তার বাবা-মা সময়মত স্কুলের বেতন পরিশোধ করতে পেরেছিলেন না। হুমকি দেয়া হয়েছিল স্কুল থেকে বের করে দেয়ার। তখন বিছানার নিচে জমানো টাকা দিয়ে মেটানো হয়েছিল তার স্কুলের বেতন।

তিনি আরও বলেন, এখন তার কাছে অর্থ সম্পদের অভাব না থাকলেও জীবনে অভাব অনটনের মধ্যে বড় হয়েছেন বলেই টাকার মূল্য তিনি বোঝেন। বলিউডে কোনোদিন কারো কাছে টাকার জন্য

হাত পাতেননি উল্লেখ করে শাহরুখ বলেন, তিনি সবসময় চেষ্টা করেছেন মানুষের পাশে দাঁড়াতে। তাইতো বলিউডে তাকে বাদশাহ বলে সম্বোধন করা হয়। চেষ্টাও করেন সবসময় বাদশাহর মত থাকতে।

শুধু তাই নয়, একবার বাবার চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন ছিল ২০টি দামি ইনজেকশনের। তখন তার লন্ডন প্রবাসী এক আন্টি নাকি দিয়েছিলেন সেই ইনজেকশন কেনার অর্থ। দুঃখ প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন, এখনও জানেন না তার বাবা কেনো মারা গিয়েছিলেন।

জীবনে অভাব দেখেছেন তাও এখনকার অর্থ ও বিত্ত তাকে পাল্টে দিতে পারেনি। শুধু চান তার সন্তানরা সবসময় ভালো থাকুক। মাথার ওপর সবসময় যেন তাদের ছাদ থাকুক।

খ্যাতি কিংবা অর্থ বিত্তের কমতি নেই বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের। কিন্তু সবসময় তার জীবন এমন ছিল না। এক সময় বাবা-মা স্কুলের বেতন নির্দিষ্ট সময়ে পরিশোধ করতে পারেননি বলে তাকে স্কুল থেকে বের করে দেয়ায় কথা বলেছিল স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এমনটি জানিয়েছেন শাহরুখ সম্প্রতি দেয়া এক সাক্ষাৎকারে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।সাক্ষাৎকারে তিনি ভাগ করেন নেন জীবনে পাওয়া নানা কষ্টের কথাও। এই নায়ক জানান,

আর্থিক সমস্যার কারণে একবার তার বাবা-মা সময়মত স্কুলের বেতন পরিশোধ করতে পেরেছিলেন না। হুমকি দেয়া হয়েছিল স্কুল থেকে বের করে দেয়ার। তখন বিছানার নিচে জমানো টাকা দিয়ে মেটানো হয়েছিল তার স্কুলের বেতন।

তিনি আরও বলেন, এখন তার কাছে অর্থ সম্পদের অভাব না থাকলেও জীবনে অভাব অনটনের মধ্যে বড় হয়েছেন বলেই টাকার মূল্য তিনি বোঝেন। বলিউডে কোনোদিন কারো কাছে টাকার জন্য

হাত পাতেননি উল্লেখ করে শাহরুখ বলেন, তিনি সবসময় চেষ্টা করেছেন মানুষের পাশে দাঁড়াতে। তাইতো বলিউডে তাকে বাদশাহ বলে সম্বোধন করা হয়। চেষ্টাও করেন সবসময় বাদশাহর মত থাকতে।

শুধু তাই নয়, একবার বাবার চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন ছিল ২০টি দামি ইনজেকশনের। তখন তার লন্ডন প্রবাসী এক আন্টি নাকি দিয়েছিলেন সেই ইনজেকশন কেনার অর্থ। দুঃখ প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন, এখনও জানেন না তার বাবা কেনো মারা গিয়েছিলেন।

জীবনে অভাব দেখেছেন তাও এখনকার অর্থ ও বিত্ত তাকে পাল্টে দিতে পারেনি। শুধু চান তার সন্তানরা সবসময় ভালো থাকুক। মাথার ওপর সবসময় যেন তাদের ছাদ থাকুক।

About admin

Check Also

মহানবীকে কটূক্তি: তিন খানের নীরবতা নিয়ে প্রশ্ন নাসিরুদ্দিন শাহের

স্পষ্ট মতামত দেওয়ার জন্য অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ বলিউডে বেশ পরিচিত। তিনি কখনো রাজনৈতিক বিষয়ে মন্তব্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published.