ক্ষমা চাইতে হবে প্রধানমন্ত্রীকে: মির্জা ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলছেন, খালেদা জিয়াকে পদ্মা সেতু থেকে টুস করে ফেলা দেয়ার কথা বলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমা চাইতে হবে।

আজ সোমবার (২৩ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে এ আহ্বান জানান তিনি। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক হত্যার হুমকির প্রতিবাদ’ শীর্ষক এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ থেকে এমন কথা আসতে পারে যা কল্পনাও করা যায় না। কোনো সভ্য দেশের মানুষ এটা মানবে না বলেও মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শুনে সারা দেশের মানুষ ধিক্কার জানাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী জেনে গেছেন আর ক্ষমতায় আসতে পারবেন না।

তাই এমন অসংলগ্ন কথা বলছেন বলে দাবি করেন ফখরুল। পদ্মা সেতু জনগণের টাকায় হয়েছে জানিয়ে ফখরুল বলেন, এটি কারও একক সম্পত্তি নয়। উন্নয়নের নামে সরকার মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে বলেও জানান তিনি।

প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, পদ্মা সেতু থেকে খালেদা জিয়াকে টুস করে ফেলে দেয়ার যে উক্তি করেছেন শেখ হাসিনা, আমরা তার তীব্র নিন্দা জানাই। এই কটুক্তির জন্য ক্ষমা চান জনগণের কাছে। অন্যথায় জনগণ আপনাদের ক্ষমা চাওয়ারও সুযোগ দেবে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু করার বড়াই করছেন দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, পদ্মা সেতু আপনার একার না, আওয়ামী লীগের পৈত্রিক সম্পত্তি না। জনগণের ট্যাক্স কেটে নিয়েছেন, সেই টাকা দিয়ে করেছেন। সরকারের উন্নয়নের বিষয়ে তিনি বলেন, কিসের উন্নয়ন করেছেন,

কার উন্নয়ন করেছেন? উন্নয়ন তো করেছেন পি কে হালদারের। উন্নয়ন করেছেন শিক্ষামন্ত্রীর ভাইয়ের। আর আপনারা যারা ক্ষমতায় আছেন, তাদের প্রত্যেকের। তারা এই দেশকে একটা লুটপাটের রাজত্ব তৈরি করেছেন।

আওয়ামী লীগ দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে গেছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রত্যেক দিন অর্থনীতিবিদরা বলছেন- বাংলাদেশের অর্থনীতি রসাতলে যাচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ধ্বংসের দিকে নিয়ে গেছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ থেকে এমন কথা আসতে পারে যা কল্পনাও করা যায় না। কোনো সভ্য দেশের মানুষ এটা মানবে না বলেও মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শুনে সারা দেশের মানুষ ধিক্কার জানাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী জেনে গেছেন আর ক্ষমতায় আসতে পারবেন না।

তাই এমন অসংলগ্ন কথা বলছেন বলে দাবি করেন ফখরুল। পদ্মা সেতু জনগণের টাকায় হয়েছে জানিয়ে ফখরুল বলেন, এটি কারও একক সম্পত্তি নয়। উন্নয়নের নামে সরকার মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে বলেও জানান তিনি।

প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, পদ্মা সেতু থেকে খালেদা জিয়াকে টুস করে ফেলে দেয়ার যে উক্তি করেছেন শেখ হাসিনা, আমরা তার তীব্র নিন্দা জানাই। এই কটুক্তির জন্য ক্ষমা চান জনগণের কাছে। অন্যথায় জনগণ আপনাদের ক্ষমা চাওয়ারও সুযোগ দেবে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু করার বড়াই করছেন দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, পদ্মা সেতু আপনার একার না, আওয়ামী লীগের পৈত্রিক সম্পত্তি না। জনগণের ট্যাক্স কেটে নিয়েছেন, সেই টাকা দিয়ে করেছেন। সরকারের উন্নয়নের বিষয়ে তিনি বলেন, কিসের উন্নয়ন করেছেন,

About admin

Check Also

‘তারেক রহমান লন্ডনে বসে হারিকেন ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত’: জয়

“তারেক রহমান লন্ডনে বসে হারিকেন ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত৷ হঠাৎ করে তারা হারিকেন নিয়ে খুব উদগ্রীব। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.