মহানবীকে (সা.) অবমাননা: কুয়েতে ভারতীয় পণ্য বয়কট শুরু

মহানবী হযরত মোহাম্মদকে (সা.) নিয়ে ভারতের বিজেপি নেত্রীর অবমাননাকর মন্তব্যে ফুঁসছে মুসলিম বিশ্ব। বেশকিছু দেশ ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে ডেকে এর জবাব চেয়েছে। এবার মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতের সুপারমার্কেটগুলো ভারতীয় পণ্য বর্জন করতে শুরু করেছে। খবর এএফপি।

খবরে বলা হয়, কুয়েতের বিভিন্ন সুপারমার্কেটের তাক থেকে ভারতীয় পণ্য বের করে আলাদা করে ফেলা হচ্ছে। ডিসপ্লে থেকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কোথাও কোথাও ভারতীয় পণ্যগুলো প্লাস্টিক বা অন্য কিছু দিয়ে ঢেকে দেওয়া হচ্ছে।

একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, আল-আরদিয়া কো-অপারেটিভ সোসাইটি স্টোরের কর্মীরা বিজেপি নেত্রীর ইসলামবিদ্বেষী মন্তব্যের প্রতিবাদে ভারতীয় চা এবং অন্যান্য পণ্য ট্রলিতে করে সরিয়ে নেয়। আরেকজন ভারতীয় চালের বস্তা এবং মশলা ও মরিচের তাকগুলো প্লাস্টিকের চাদর দিয়ে ঢেকে দেয়। স্টোরের কর্মীরা জানান, ভারতীয় পণ্য বয়কটের ডাক দেওয়া হয়েছে। তাই তারা এসব পদক্ষেপ নিচ্ছেন

কুয়েত শহরের ঠিক বাইরে অবস্থিত বিভিন্ন সুপারমার্কেটে ব্যানারে লিখে দেওয়া হয়েছে, আমরা ভারতীয় পণ্য সরিয়ে দিয়েছি। একটি সুপারস্টোরের সিইও নাসের আল-মুতাইরি বলেন, আমরা কুয়েতের মুসলিম জনগণ কোনোভাবেই নবীর অবমাননা মেনে নেব না।

জানা গেছে, সৌদি আরব, কাতার, কুয়েত ও ইরান ভারতীয় রাষ্ট্রদূতদের তলব করেছে, অন্যদিকে কায়রোর প্রভাবশালী আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়সহ ওই অঞ্চলের অন্যান্য দেশ এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছে।

সম্প্রতি ভারতের ক্ষমতসীন দল বিজেপির মুখপাত্র নুপুর শর্মা এবং দলের দিল্লির মিডিয়া প্রধান নবীন জিন্দাল ইসলামবিদ্বেষী ও মহানবীর (সা.) প্রতি অবমাননাকর মন্তব্য করে। বিষয়টি নিয়ে দেশ বিদেশে তীব্র নিন্দা জানানো শুরু হলে উভয়কেই দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

পরে আনুষ্ঠানিক এক বিবৃতিতে বিজেপি জানায়, তারা এ ধরনের দর্শনকে প্রচার করে না। ভারতের হাজার হাজার বছরের ইতিহাসে প্রতিটি ধর্মই প্রস্ফুটিত ও বিকাশ লাভ করেছে। ভারতীয় জনতা পার্টি সব ধর্মকেই সম্মান করে।

মহানবী হযরত মোহাম্মদকে (সা.) নিয়ে ভারতের বিজেপি নেত্রীর অবমাননাকর মন্তব্যে ফুঁসছে মুসলিম বিশ্ব। বেশকিছু দেশ ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে ডেকে এর জবাব চেয়েছে। এবার মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতের সুপারমার্কেটগুলো ভারতীয় পণ্য বর্জন করতে শুরু করেছে। খবর এএফপি।

খবরে বলা হয়, কুয়েতের বিভিন্ন সুপারমার্কেটের তাক থেকে ভারতীয় পণ্য বের করে আলাদা করে ফেলা হচ্ছে। ডিসপ্লে থেকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কোথাও কোথাও ভারতীয় পণ্যগুলো প্লাস্টিক বা অন্য কিছু দিয়ে ঢেকে দেওয়া হচ্ছে।

একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, আল-আরদিয়া কো-অপারেটিভ সোসাইটি স্টোরের কর্মীরা বিজেপি নেত্রীর ইসলামবিদ্বেষী মন্তব্যের প্রতিবাদে ভারতীয় চা এবং অন্যান্য পণ্য ট্রলিতে করে সরিয়ে নেয়। আরেকজন ভারতীয় চালের বস্তা এবং মশলা ও মরিচের তাকগুলো প্লাস্টিকের চাদর দিয়ে ঢেকে দেয়। স্টোরের কর্মীরা জানান, ভারতীয় পণ্য বয়কটের ডাক দেওয়া হয়েছে। তাই তারা এসব পদক্ষেপ নিচ্ছেন

কুয়েত শহরের ঠিক বাইরে অবস্থিত বিভিন্ন সুপারমার্কেটে ব্যানারে লিখে দেওয়া হয়েছে, আমরা ভারতীয় পণ্য সরিয়ে দিয়েছি। একটি সুপারস্টোরের সিইও নাসের আল-মুতাইরি বলেন, আমরা কুয়েতের মুসলিম জনগণ কোনোভাবেই নবীর অবমাননা মেনে নেব না।

জানা গেছে, সৌদি আরব, কাতার, কুয়েত ও ইরান ভারতীয় রাষ্ট্রদূতদের তলব করেছে, অন্যদিকে কায়রোর প্রভাবশালী আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়সহ ওই অঞ্চলের অন্যান্য দেশ এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছে।

সম্প্রতি ভারতের ক্ষমতসীন দল বিজেপির মুখপাত্র নুপুর শর্মা এবং দলের দিল্লির মিডিয়া প্রধান নবীন জিন্দাল ইসলামবিদ্বেষী ও মহানবীর (সা.) প্রতি অবমাননাকর মন্তব্য করে। বিষয়টি নিয়ে দেশ বিদেশে তীব্র নিন্দা জানানো শুরু হলে উভয়কেই দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

পরে আনুষ্ঠানিক এক বিবৃতিতে বিজেপি জানায়, তারা এ ধরনের দর্শনকে প্রচার করে না। ভারতের হাজার হাজার বছরের ইতিহাসে প্রতিটি ধর্মই প্রস্ফুটিত ও বিকাশ লাভ করেছে। ভারতীয় জনতা পার্টি সব ধর্মকেই সম্মান করে।

About admin

Check Also

চাঁদপুরে নির্মাণ হলো ‘আল্লাহর ৯৯ নামের স্তম্ভ’

চাঁদপুরের কচুয়ার কড়ইয়া ইউনিয়নে ব্যক্তি ও স্থানীয় বাসিন্দাদের আর্থিক সহায়তা নির্মিত হয়েছে আল্লাহর ৯৯ নামের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.