এবার শিক্ষক-শিক্ষিকার অন্তরঙ্গ ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও)!

চাঁদপুরের কচুয়ায় প্রা’ইমারি স্কুলের প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে তার সহকর্মী এক শি’ক্ষিকার অ’ন্তরঙ্গ ছবি ফে’সবুকে ভা’ইরাল হয়ে পড়েছে। সম্প্রতি কচুয়া শিক্ষক স’মিতির মা’র্কেটের স্টুডিও মি’নতির পরিচালক সু’মন রায়ের ফেসবুক আ’ইডি থেকে স্ট্যাটাস দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে ছ’বিটি ভা’ইরাল হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, কচুয়া উপজেলার শ্রীরামপুর স’রকারি প্রাথমিক বি’দ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জাহাঙ্গীর ও তা’লতলী সপ্রাবির এক সহকারী শি’ক্ষিকার অ’ন্তরঙ্গ ও আ’পত্তিকর একটি ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে এলাকায় নানা গু’ঞ্জনসহ আ’লোচনার ঝড় উ’ঠে।

স্থানীয়া জানান, এক স’ন্তানের জননী ওই শি’ক্ষিকা ব’র্তমানে আলীগঞ্জ পিটিআই’তে প্রশিক্ষণে র’য়েছেন। শি’ক্ষক জা’হাঙ্গীর বিভিন্ন স’ময় তাকে ফোন করে ডেকে নিয়ে বিভিন্ন কা’জের দা’য়িত্ব দিলে তিনি তা করে দিতেন। এভাবেই তা’দের মধ্যে অ’ন্তরঙ্গ সম্পর্ক গড়ে উঠে।

ওই শিক্ষিকা বলেন, গত ৬ই মে শি’ক্ষক জাহাঙ্গীর আমাকে মু’ঠোফোনে হাজীগঞ্জের একটি বা’সায় যেতে বলে। পিটিআই’র ছুটি হ’ওয়ার পর আমি সেখানে যাই। ওই বাসায় গেলে ফেসবুকে ভা’ইরাল হওয়া ছবিটি তোলা হয়।

এদিকে এক স’ন্তানের জনক কচুয়া পৌ’রসভাধীন ধামালুয়া গ্রামের অ’ধিবাসী মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, তার সাথে আমার ক’র্মক্ষেত্রে সা’ধারণ পরিচয় ছাড়া অন্য কোনো সম্পর্ক নেই। ভা’ইরাল হওয়া ছবি সম্পর্কে তিনি কোনো স’দুত্তর দিতে পারেননি।

চাঁদপুরের কচুয়ায় প্রা’ইমারি স্কুলের প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে তার সহকর্মী এক শি’ক্ষিকার অ’ন্তরঙ্গ ছবি ফে’সবুকে ভা’ইরাল হয়ে পড়েছে। সম্প্রতি কচুয়া শিক্ষক স’মিতির মা’র্কেটের স্টুডিও মি’নতির পরিচালক সু’মন রায়ের ফেসবুক আ’ইডি থেকে স্ট্যাটাস দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে ছ’বিটি ভা’ইরাল হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, কচুয়া উপজেলার শ্রীরামপুর স’রকারি প্রাথমিক বি’দ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জাহাঙ্গীর ও তা’লতলী সপ্রাবির এক সহকারী শি’ক্ষিকার অ’ন্তরঙ্গ ও আ’পত্তিকর একটি ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে এলাকায় নানা গু’ঞ্জনসহ আ’লোচনার ঝড় উ’ঠে।

স্থানীয়া জানান, এক স’ন্তানের জননী ওই শি’ক্ষিকা ব’র্তমানে আলীগঞ্জ পিটিআই’তে প্রশিক্ষণে র’য়েছেন। শি’ক্ষক জা’হাঙ্গীর বিভিন্ন স’ময় তাকে ফোন করে ডেকে নিয়ে বিভিন্ন কা’জের দা’য়িত্ব দিলে তিনি তা করে দিতেন। এভাবেই তা’দের মধ্যে অ’ন্তরঙ্গ সম্পর্ক গড়ে উঠে।

ওই শিক্ষিকা বলেন, গত ৬ই মে শি’ক্ষক জাহাঙ্গীর আমাকে মু’ঠোফোনে হাজীগঞ্জের একটি বা’সায় যেতে বলে। পিটিআই’র ছুটি হ’ওয়ার পর আমি সেখানে যাই। ওই বাসায় গেলে ফেসবুকে ভা’ইরাল হওয়া ছবিটি তোলা হয়।

এদিকে এক স’ন্তানের জনক কচুয়া পৌ’রসভাধীন ধামালুয়া গ্রামের অ’ধিবাসী মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, তার সাথে আমার ক’র্মক্ষেত্রে সা’ধারণ পরিচয় ছাড়া অন্য কোনো সম্পর্ক নেই। ভা’ইরাল হওয়া ছবি সম্পর্কে তিনি কোনো স’দুত্তর দিতে পারেননি।
সূত্র: মানবজমিন।

About admin

Check Also

এবারও ১৭ জোড়া বর-কনের বিয়ে দিলো ভোলা সমিতি

প্রতিটি মানুষের জীবনে বিয়ে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। জন্ম ও মৃত্যুর পরই মানুষের জীবনে বিয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *