মারা গেলেন সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী সেলিম খান

এবার পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে যুদ্ধাপরাধ মামলায় আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি জামায়াত ইসলামীর নায়েবে আমীর মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী সেলিম খান (৬৭) মারা গেছেন।

গতকাল সোমবার ২৫ জুলাই সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। সেলিম খান ইন্দুরকানী উপজেলার পাড়েরহাটের বাদুরা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নূর মোহাম্মদ খানের ছেলে।

এদিকে সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী সেলিম খানের ভাগিনা ইয়েন তার মামার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে জানান, সেলিম খান দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। গত ১ সপ্তাহ ধরে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত দু’দিন ধরে তিনি লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে মারা যান।

এবার পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে যুদ্ধাপরাধ মামলায় আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি জামায়াত ইসলামীর নায়েবে আমীর মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী সেলিম খান (৬৭) মারা গেছেন।

গতকাল সোমবার ২৫ জুলাই সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। সেলিম খান ইন্দুরকানী উপজেলার পাড়েরহাটের বাদুরা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নূর মোহাম্মদ খানের ছেলে।

এদিকে সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী সেলিম খানের ভাগিনা ইয়েন তার মামার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে জানান, সেলিম খান দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। গত ১ সপ্তাহ ধরে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত দু’দিন ধরে তিনি লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে মারা যান।

এবার পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে যুদ্ধাপরাধ মামলায় আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি জামায়াত ইসলামীর নায়েবে আমীর মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী সেলিম খান (৬৭) মারা গেছেন।

গতকাল সোমবার ২৫ জুলাই সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। সেলিম খান ইন্দুরকানী উপজেলার পাড়েরহাটের বাদুরা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নূর মোহাম্মদ খানের ছেলে।

এদিকে সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী সেলিম খানের ভাগিনা ইয়েন তার মামার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে জানান, সেলিম খান দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। গত ১ সপ্তাহ ধরে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত দু’দিন ধরে তিনি লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে মারা যান।

এদিকে সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী সেলিম খানের ভাগিনা ইয়েন তার মামার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে জানান, সেলিম খান দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। গত ১ সপ্তাহ ধরে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত দু’দিন ধরে তিনি লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে মারা যান।

About admin

Check Also

রুবেলের ম’রদেহ নিতে ম’র্গে স্ত্রী’র দাবিতে ৪ নারী

গতকাল বিকেলে রাজধানীর উত্তরায় নির্মাণাধীন বিআরটি প্রকল্পের গার্ডার ক্রেন থেকে ছিটকে পড়ে প্রাইভেটকারে থাকা শিশুসহ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.