বিশ্বকাপে ৫ ম্যাচেই হারবে বাংলাদেশ, কল্পনাও করেননি ডু প্লেসি

সাউথ আফ্রিকার ক্রিকেটকে আজকের এই উচ্চ পর্যায়ে নিয়ে আসতে যে কয়জন ক্রিকেটার সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তাঁর মধ্যে ডু প্লেসি অন্যতম। এই পর্যন্ত অনেক রেকর্ড নিজেদের করে নিয়েছেন এই তারকা ক্রিকেটার।

নতুন খবর হচ্ছে, সুপার টুয়েলভের পাঁচ ম্যাচের পাঁচটিতেই হার, তাতে ব্যর্থতার বিশ্বকাপ মিশন শেষে বাড়ি ফিরেছে বাংলাদেশ। মূল পর্বে সবগুলো ম্যাচই হারবে এমনটা কল্পনাই করেননি ফাফ ডু প্লেসি। ভালো শুরু করতে না পারায় বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি বলে মনে করেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক এই অধিনায়ক।

বিশ্বকাপে খেলতে যাওয়ার আগে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছিল বাংলাদেশ। টানা জয়ে আত্মবিশ্বাস তৈরি হলেও সেটা কাজে দেয়নি বিশ্বকাপে। প্রস্তুতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কা ও আয়ার‌ল্যান্ডের বিপক্ষে হারার পর বাছাই পর্বের প্রথম ম্যাচে হোঁচট খায় স্কটল্যান্ডের কাছে।

বাংলাদেশের জন্য যেটা খানিকটা অপ্রত্যাশিতই ছিল। স্কটিশদের কাছে হারায় তলানিতে ঠেকে বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাস। ওমান ও পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে জয় তুলে নিয়ে সুপার টুয়েলভে গেলেও সেই ধারা বজায় রাখতে পারেনি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। যেখানে পাঁচ ম্যাচের পাঁচটিতেই হারে বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কা এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বাগে পেলেও হারাতে পারেননি সাকিব আল হাসান-মুশফিকুর রহিমরা। আইসিসির টুর্নামেন্টে ভালো করতে ক্রিকেটারদের ফর্মটা গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন ডু প্লেসি। আর সেখানেই হোঁচট খেয়েছে বাংলাদেশ। একমাত্র সাকিব ছাড়া আর কেউ সেভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। তাতে শূন্য হাতে ফিরতে হয়েছে টাইগারদের।

ডু প্লেসি বলেন, ‘হ্যাঁ, আমি পাঁচটির মাঝে পাঁচটি আশা করিনি (হার)।কিন্তু টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ফর্ম এবং মোমেন্টামটা গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যখন বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টে খেলতে আসেন তখন আপনাকে ভালো পারফর্ম করতে হবে এবং ভালো শুরু করতে হবে। আমি যদি ভারতকে উদাহরণ হিসেবে দেখাই তাহলে দেখবেন তাদের শুরুটা ভালো হয়নি। কারণ গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়েরা ফর্মে ছিল না।

তাদের ফর্মে ফিরতে ২-৩ টা ম্যাচ লেগেছিল। ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গেছে।’ বাংলাদেশের জন্য যেটা খানিকটা অপ্রত্যাশিতই ছিল। স্কটিশদের কাছে হারায় তলানিতে ঠেকে বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাস। ওমান ও পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে জয় তুলে নিয়ে সুপার টুয়েলভে গেলেও সেই ধারা বজায় রাখতে পারেনি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। যেখানে পাঁচ ম্যাচের পাঁচটিতেই হারে বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কা এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বাগে পেলেও হারাতে পারেননি সাকিব আল হাসান-মুশফিকুর রহিমরা। আইসিসির টুর্নামেন্টে ভালো করতে ক্রিকেটারদের ফর্মটা গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন ডু প্লেসি। আর সেখানেই হোঁচট খেয়েছে বাংলাদেশ। একমাত্র সাকিব ছাড়া আর কেউ সেভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। তাতে শূন্য হাতে ফিরতে হয়েছে টাইগারদের।

ডু প্লেসি বলেন, ‘হ্যাঁ, আমি পাঁচটির মাঝে পাঁচটি আশা করিনি (হার)।কিন্তু টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ফর্ম এবং মোমেন্টামটা গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যখন বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টে খেলতে আসেন তখন আপনাকে ভালো পারফর্ম করতে হবে এবং ভালো শুরু করতে হবে। আমি যদি ভারতকে উদাহরণ হিসেবে দেখাই তাহলে দেখবেন তাদের শুরুটা ভালো হয়নি। কারণ গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়েরা ফর্মে ছিল না। তাদের ফর্মে ফিরতে ২-৩ টা ম্যাচ লেগেছিল। ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গেছে।’

About admin

Check Also

৬টি দল নিয়ে মিরপুরে হতে যাচ্ছে বিশ্বের সব থেকে জনপ্রিয় ক্রিকেট লিগ

২০১৭ সাল থেকে শুরু হওয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে সংক্ষিপ্ত সংস্করণ টি-টেন লিগ বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *